আজ: ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, বিকাল ৩:২৩
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ, বরিশাল বিভাগ কুয়াকাটা সৈকতে নিজ প্রতিভার বিকাশ ঘটালো এক আগত পর্যটক

কুয়াকাটা সৈকতে নিজ প্রতিভার বিকাশ ঘটালো এক আগত পর্যটক


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ২১/০২/২০২৩ , ৮:৪৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ,বরিশাল বিভাগ


মাসুম খন্দকার কলাপাড়া পটুয়াখালী: সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয়ের বেলাভূমিতে এক পর্যটকের আল্পনায় ফুটে উঠল কাল্পনিক মৎসকন্যা। আজ (সোমবার) সকালে ২ ঘন্টায়র পরিশ্রমে কুয়াকাটার বালিয়াড়িতে এমন নান্দনিক চিত্র ফুটিয়ে তুলছে গাজিপুর থেকে আসা মো. রফিক নামে এক পর্যটক ও তার বন্ধুরা। এমন নান্দনিক ভাস্কর্য দেখতে ভীড় জমিয়েছে কুয়াকাটায় আগত পর্যটকরা। কেউ সেলফি তুলছে কেউবা আবার প্রশংসায় ভাসিয়েছেন রফিকদেরকে।

মানুষ এবং মাছের বৈশিষ্ট্য নিয়ে ফুটিয়ে তোলা এই প্রাণীটি দেখতে নারীর মতো। যার আছে কোমর অব্দি সোনালী চুল। শরীরের উপরিভাগ নারীদের মতো এবং নিচের দিক মাছের মতো লেজযুক্ত। কুয়াকাটার ঐতিহ্য ও সৌন্দর্য পর্যটন প্রেমিদের কাছে তুলে ধরার জন্য এমন একটি ভাস্কর্য সমুদ্রের তীরে স্থায়ী ভাবে করার জোর অনুরোধ করছে কুয়াকাটায় আগত পর্যটকরা।

মৎসকন্যা কিভাবে তৈরি করলেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি ও আমার বন্ধুরা মিলে কুয়াকাটায় বেড়াতে আসছি। যেহেতু কুয়াকাটার নাম সাগরকন্যা সেহেতু আমরা এমন একটি ছবি করতে চাই যা কুয়াকাটার নামের সাথে মিলে। আমাদের তেমন কোন প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষা নেই তবে, মৎস কন্যার ছবি ইউটিউবে দেখছি সেখান থেকে যতটুকু অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছি সে টুকুরই প্রতিফলন ঘটানোর চেষ্টা করেছি।

বালিয়াড়িতে আঁকা ছবিটির পাশে দাড়ানো এক পর্যটক মোঃ সোহান বলেন, আমি ভিডিওতে মৎস কন্যার ছবি দেখেছি আজ আবার বালুতে আঁকা অবস্থায় দেখতে পেয়ে খুব ভালোই লাগছে।

খুলনার হাবিব বলেন, সত্যি অনেক সুন্দর একটা ড্রইং করেছে। এমন একটি ভাস্কর্য স্থায়ীভাবে করলে কুয়াকাটায় নতুন আকর্ষণ হবে।

কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র বলেন, কুয়াকাটা সৈকতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নানা গুনের মানুষ আসে। এক পর্যটকের নিপুন হাতের মাধ্যমে সমুদ্র কন্যার চিত্র ফুটেয়ে তুলছে সেটি প্রশংসার দাবিদার।

Comments

comments