আজ: ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, দুপুর ২:৪৩
সর্বশেষ সংবাদ
খুলনা বিভাগ, জেলা সংবাদ ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট গাছ কাটার অনুমতি দিলো: বাংলাদেশ কি করবে

ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট গাছ কাটার অনুমতি দিলো: বাংলাদেশ কি করবে


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ১৮/০২/২০২৩ , ৫:৩৪ অপরাহ্ণ | বিভাগ: খুলনা বিভাগ,জেলা সংবাদ


এম.আমিরুল ইসলাম জীবন: ঐতিহাসিক যশোর রোড সম্প্রসারণের জন্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁ থেকে বারাসাত পর্যন্ত ৩০৫টি প্রাচীন গাছ কেটে ফেলার অনুমতি দিয়েছে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট।

২০১৮ সালে দেওয়া স্থগিতাদেশ গত বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) প্রত্যাহার করে আদেশ জারি করে উক্ত আদালত।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসের বরাতে জানা গেছে, গাছ কাটার আগে ভারতের জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষকে দেড় হাজার গাছ লাগিয়ে দিতে হবে। এই আদেশের ফলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সাথে বাংলাদেশের সরাসরি সংযোগ স্থাপনকারী সড়কের ভারতীয় অংশে রাস্তা সম্প্রসারণ প্রকল্পের ওপর থেকে সকল বাধা অপসারিত হলো।

এদিকে আদালতের একটি স্থগিতাদেশ এর কারনে বাংলাদেশের যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের দুপাশে অবস্হিত ৪ শতাধিক প্রাচীন গাছ অপসারণ না করতে পারায় দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালনকারী এই মহাসড়কটি ৬ লেনে উন্নীত করা সম্ভব হয়নি। গাছ কাটার উপর স্থগিতাদেশ দাবী করা পরিবেশবাদীরা ২০১৮ সালে কোর্টে রীট করার সময় ভারতীয় অংশে গাছ রাখার উপর আদালতের রায়কে তাদের পক্ষে উপস্থাপন করেছিলো। তখন কোর্ট বাংলাদেশ অংশে গাছ না মারার জন্য ৬ মাসের স্টে অর্ডার দিয়েছিলো। পরবর্তীতে ৫ বছর পার হয়ে গেলেও সেই রায় এখনও বহাল আছে।

তবে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের এই যুগান্তকারী রায়ের ফলে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টও তাদের স্থগিতাদেশ তুলে নেবে বলে মনে করেন ভারত বাংলাদেশ যৌথ বানিজ্য কমিটির পরিচালক মোঃ মতিয়ার রহমান। তিনি বলেন, এই মৃত গাছগুলো এখন মানুষের জানমালের জন্য হুমকিস্বরূপ। বেনাপোল দেশের সবথেকে বড় স্থল বন্দর আর এই বন্দরকে সচল রাখতে যতদ্রুত সম্ভব গাছগুলো অপসারণ করে মহাসড়কটি ৬ লেনে উন্নীত করতে হবে।

দীর্ঘ ৬ বছর ধরে যশোর বেনাপোল মহাসড়কের মৃত ঝুকিপূর্ণ গাছগুলো অপসারণের দাবিতে আন্দোলন করা ঝিকরগাছার ঐতিহ্যবাহী সেবা সংগঠনের উপদেষ্টা এবং নাগরিক অধিকার আন্দোলন যশোর এর সমন্বয়ক মাসুদুজ্জামান মিঠু বলেন, গাছের কারণে এই সড়কে দূর্ঘটনার হার অনেক বেশি। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় বেনাপোল বন্দরের গুরুত্বও বেড়েছে। তাই যতদ্রুত সম্ভব গাছগুলো কেটে যশোর বেনাপোল মহাসড়ককে আন্তর্জাতিক মানের করতে হবে। বাংলাদেশ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ডেপুটি সেক্রেটারি আব্দুল লতিফ খান বলেন কোর্টের যে স্থগিতাদেশ আছে সল্প সময়ের মধ্যে সেটা দুর হবে বলে আমি আশাবাদী। খুব শীঘ্রই ভাঙ্গা থেকে বেনাপোল পর্যন্ত মহাসড়ক ৬ লেনে উন্নীতকরণের কাজ শুরু হবে।

Comments

comments