আজ: ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, রাত ৯:২১
সর্বশেষ সংবাদ
চটগ্রাম বিভাগ, জেলা সংবাদ, সারাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাতের বাসের যাত্রীকে দুই দফায় গণধর্ষণ, চালকসহ গ্রেফতার ২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাতের বাসের যাত্রীকে দুই দফায় গণধর্ষণ, চালকসহ গ্রেফতার ২


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ১৮/০৯/২০২২ , ৬:৩৮ অপরাহ্ণ | বিভাগ: চটগ্রাম বিভাগ,জেলা সংবাদ,সারাদেশ


আসাদুজ্জামান আসাদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক বাস যাত্রী নারীকে (৪০) গণধর্ষণের ঘটনায় বাস চালক সহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে সদর মডেল থানা পুলিশ। রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) সদর মডেল থানা পুলিশের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস বাসের চালক ও নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার ঘাশিরদিয়া গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে নজরুল ইসলাম (২৬) এবং সদর উপজেলার রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বর গ্রামের টিম্বার মিলের মালিক তাজুল ইসলামের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ তামিম (২১)।
এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে ঢাকা থেকে আখাউড়ার খরমপুর মাজারে যাওয়া উদ্দেশ্যে এক নারী (৪০) ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস নামের একটি বাসে উঠেন।

মধ্যরাতে এসে জেলা শহরের কাউতুলী এলাকায় বাস হতে নামেন। মধ্যরাত হয়ে যাওয়ায় সেখান থেকে তিনি আখাউড়া যেতে কোন যানবাহন পাচ্ছিলেন না। কিছুক্ষণ পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস কোম্পানির আরেকটি বাস কাউতুলী মোড়ে এসে দাঁড়ায়।

এসময় আখাউড়ায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে এর স্টাফ ফুসলিয়ে সেই নারীকে বাসে উঠায়৷ কিছুদূর যাওয়ার পর ভাদুঘর এলাকায় সেই নারীকে বাসের চালক নজরুল ও বাসের স্টাফ জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে সেই নারীকে জোরপূর্বক রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বরে তামিম টিম্বার মিলের ভিতরে নিয়ে তারা পুনরায় ধর্ষণ করে।

ঘটনাটি দেখে ফেলায় টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ তামিম তার বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে সেই নারীকে আবার গণধর্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, অভিযুক্তরা গণধর্ষণের শিকার নারীকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেওয়ার কথা বলে কাউতুলী এলাকায় এনে ছেড়ে দেয়। সেখান থেকে তিনি সদর মডেল থানায় এসে বিস্তারিত জানান।

পরে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত বাস চালক নজরুল ও টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে তামিমকে গ্রেফতার করা হয়। অপর আসামীদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত আছে। ভিকটিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

Comments

comments

Close