আজ: ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১:২৪
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ, ঢাকা বিভাগ, সারাদেশ ব্রিজ ভেঙে ঠিকাদার উধাও, নৌকায় পারাপার

ব্রিজ ভেঙে ঠিকাদার উধাও, নৌকায় পারাপার


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ২২/০৬/২০২২ , ৮:৩১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ,ঢাকা বিভাগ,সারাদেশ


সাইফুল ইসলাম, শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নে একটি পুরাতন ব্রিজ ভেঙে ঠিকাদার উধাও হয়ে গেছে। তালিক্কাকান্দি খালের ওপর একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের টেন্ডার হলেও দীর্ঘ সময় ধরে কোনো প্রকার উদ্যোগ নেই এলজিইডি কিংবা ঠিকাদারের। এছাড়া পুরাতন ব্রিজ ভাঙা হলেও করা হয়নি বিকল্প কোনো যাতায়াতের পথ। চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ইউনিয়নটির তালিক্কাকান্দি, বাহাউদ্দিন মুন্সির কান্দির ৪ গ্রামের স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরাসহ সহ কয়েক হাজার বাসিন্দা।
শিক্ষার্থী ও  স্থানীয়রা  বলেন, ব্রিজ ভেঙে বিকল্প পথ না করায়  ছোট ছোট নৌকায় করে প্রতিদিনই ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে।  এছাড়া কৃষি পণ্য, অসুস্থ ও বয়স্কদের যেতে হচ্ছে ১০/১২ কিলোমিটার ঘুরে।গত তিন মাস এভাবেই কষ্ট করে চলাচল করা হচ্ছে।
ভেদরগঞ্জ এলজিইডি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সখিপুর ইউনিয়নের তালিক্কাকান্দি খালের ওপরের পুরাতন ব্রিজটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার লোক যাতায়াত করত। কিছুদিন আগে ওই স্থানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেয় এলজিইডি। ৩৬ মিটার দৈর্ঘ্যরে ব্রিজটির ব্যয় ধরা হয় ২ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। মেসার্স কেকে এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড মিজান এন্টারপ্রাইজ নামে একটি জয়েন্ট প্রতিষ্ঠান ব্রিজটি নির্মাণের দায়িত্ব পায়। আগামী ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে ব্রিজটি নির্মাণের সম্পন্নের কথা। ইমন নামে এক উপঠিকাদার ওই ব্রিজটি সম্পন্নের দায়িত্ব নেয়।
বর্ষার পূর্ব মুহূর্তে বিকল্প কোনো যাতায়াত ব্যবস্থা না করেই পুরাতন ব্রিজটি ভেঙে ফেলেছে ওই উপঠিকাদার। দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও কাজের কোনো অগ্রগতি নেই। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ওই এলাকার ছাত্রছাত্রী, শিশু, ব্যবসায়ীসহ স্থানীয় হাজার হাজার মানুষ।
সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মানিক সরদার বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে ঠিকাদারকে বারবার বলা হয়েছে যাতায়াতের জন্য একটি বিকল্প ব্যবস্থা করতে। আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, ঠিকাদার যদি না করে তবে আমরাই নিজস্ব উদ্যোগে একটি ব্যবস্থা করব।
এ বিষয়ে উপঠিকাদার ইমন বলেন, ওই খানে কাজ চলমান আছে। আপনি আমাকে পরে ফোন দিয়েন আপনার সঙ্গে কথা বলব।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী অনুপম চক্রবর্তী বলেন, জনগণের যাতায়াতের জন্য ওই ঠিকাদারকে বিকল্প ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।

Comments

comments

Close