আজ: ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ২:১৩
সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা ’১৪ বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে ন্যায্য পেনাল্টি দেয়নি রেফারি

’১৪ বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে ন্যায্য পেনাল্টি দেয়নি রেফারি


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ১৮/০৬/২০২২ , ১২:৪৭ অপরাহ্ণ | বিভাগ: খেলাধূলা


লোথার ম্যাতায়াস রীতিমতো বোমাই ফাটিয়ে বসলেন! ২০১৪ সালে ব্রাজিলের মাটিতে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ১৮ বছরের শিরোপাখরা কাটানো বিশ্বকাপটা জিতেছিল তার দেশ জার্মানি। সেই বিশ্বকাপ ফাইনাল নিয়েই তিনি কি না এমন এক মন্তব্য করে বসলেন, যা জন্ম দেবে অনেক বিতর্কের। তার মতে, সেই ফাইনালে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনাকে ন্যায্য পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। এর ফলেই জার্মানি জিতেছে বিশ্বকাপ!

জার্মান ফুটবলের এই কিংবদন্তি আসছে কাতার বিশ্বকাপের অন্যতম দূত। সম্প্রতি তিনি মুখোমুখি হয়েছিলেন আর্জেন্টাইন সংবাদ মাধ্যম লা নাসিওনের। সেখানেই তিনি জানালেন বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের স্মৃতি, অভিমত ও ভবিষ্যদ্বানী। আগের সব বিশ্বকাপ নিয়ে স্মৃতি রোমন্থন করতে গিয়েই তিনি জানান ২০১৪ বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের মত।

সেই ফাইনালের শুরুর অর্ধে আর্জেন্টিনা দারুণ সুযোগ পেয়েছিল একটা। টনি ক্রুসের ভুল পাসে গনজালো হিগুয়াইনের পায়ে গিয়ে পড়ে বল, এরপর হিগুয়াইন তা মারেন লক্ষ্যের বাইরে। এরপর তিনি অবশ্য একবার জালে জড়িয়েছিলেন বল, তবে অফসাইডের কাটায় পড়ে তিনি গোলের দেখা পাননি সেই যাত্রায়।

দ্বিতীয়ার্ধে হিগুয়াইনের কল্যাণেই আরও বেশ কয়েকটা সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। ৫৫ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে বাড়ানো বল জার্মানি বিপদসীমার ডান পাশ দিয়ে পেয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। তখনই ম্যানুয়েল নয়্যার গোললাইন ছেড়ে বেরিয়ে এসে ক্লিয়ার করেন তা। তবে তা ছিল বক্সের দাগের ঠিক ওপরে, তা করতে গিয়ে হিগুয়াইনের সঙ্গে সংঘর্ষও হয় তার। সেটা ক্লিয়ার ছিল না ফাউল, এই নিয়ে বিশ্বকাপের পর আলোচনা কম হয়নি। বলের নাগালটা হিগুয়াইন আগে পেয়েছিলেন না নয়্যার, এ নিয়েও বিতর্ক হয়েছে বেশ।

সে নিয়েই এবার মুখ খুললেন জার্মান কিংবদন্তি। বললেন, ‘ফাইনালটা আর্জেন্টিনার জেতা উচিত ছিল। রেফারির একটা পেনাল্টি দেওয়া উচিত ছিল, যা হিগুয়াইনকে ফাউল করে নয়্যার উপহার দিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। নয়্যার সীমালঙ্ঘন করেছিল সেদিন। জার্মানির ভাগ্যটা ভালো ছিল সেদিন।’

তবে সেই বিশ্বকাপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত সেই ফাইনাল ছিল না, অভিমত ম্যাতায়াসের। তার চোখে, তার আগের ম্যাচে জার্মানির স্বাগতিক ব্রাজিলকে ৭-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়াটা ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেন, ‘ব্রাজিলের বিপক্ষে ৭-১ এর সেই ম্যাচটা! সেটাই বিশ্বকাপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিল।’

জার্মানি এর আগেও অবশ্য বিশ্বকাপ জিতেছে। ১৯৭৪ সালের ফাইনালে ইয়োহান ক্রুইফের নেদারল্যান্ডসকে হারিয়েছিল তার দেশ। সেই টুর্নামেন্টেও জার্মানি সেরা দল ছিল বলে মনে হয় না তার। তিনি বলেন, ‘১৯৭৪ সালে নেদারল্যান্ডস ফাইনালের সেরা দল ছিল, কিন্তু দিন শেষে জার্মানিই জিতেছে।’

ডি মেনশ্যাফটরা তার খেলোয়াড়ি জীবনেও বিশ্বকাপ জিতেছে। সেটাই ম্যাতায়াসের চোখে সবচেয়ে নিখুঁত। তিনি বলেন, ‘আমার চোখে জার্মানির সেরা বিশ্বকাপ। সেটা ‘আমার’ দল ছিল, আমি সেখানে খেলছিলাম। আমার স্বপ্ন, আমি যেভাবে চাইতাম, বিশ্বকাপটা ঠিক সেভাবেই শেষ হয়েছিল।’

Comments

comments

Close