আজ: ২৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৮শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৭:৩২
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ মান্দায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন

মান্দায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৩/০৪/২০২২ , ৬:০১ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


নওগাঁ প্রতিনিধিঃ জেলার মান্দা উপজেলার কশব ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান তার কক্ষে সংবাদ সম্মলন করছেন। এছাড়াও ওই ইউনিয়নের  বাসিন্দারা চকবালু প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।
সংবাদ সম্মলনে চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান বলন, গত ১৯ এপ্রিল রাত ধর্ষণের অভিযাগের কথা বলে ভিক্টিম ও অভিযুক্ত মীমাংসার জন্য  চেয়ারম্যানের নিকট পরিষদে আসেন। তখন ইউপি চেয়ারম্যান নারী নির্যাতনের বিচার করতে পারবোনা মর্ম  ওই মহিলা ও অভিযুক্তকে চলে যেতে বলেন। তাপর উভয়ে মিমাংসার প্রস্তাবে রাজি জানালে উভয়ের মধ্যে পরিষদের বাহিরে মিমাংসা করে নিতে বলেন।  এর একদিন পর  ঘটনাক অন্যখাতে প্রবাহিত করে কিছু মহল “মান্দায় ইউনিয়ন পরিষদে ধর্ষণের সালিশ, ৫১হাজার টাকায় নিষ্পত্তি” শিরানাম সংবাদ প্রকাশিত হয়। এমন অভিযাগ ও প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা  জ্ঞাপন করছি। প্রকত ঘটনা হলো গত ১৯ এপ্রিল সন্ধ্যায় পরিষদ আসেন ধর্ষিতা এক মহিলা শালিস-মিমাংসার জন্য। কি আমি সেই দিন সন্ধ্যায় দলীয় নেতাকর্মীদর নিয়ে  ইফতার মাহফিলের আলাচনা করছিলাম পরিষদে। সেই সময় ভিক্টিম এবং বিবাদী উভয় পক্ষ মিমাংসার জন্য পরিষদ আসেন। তখন বিষয়টি নারী ঘটিত হওয়ায় আইনর আশ্রয় নিতে বলি মাত্র। প্রকত ঘটনার সাথ বাস্তবতার কোন মিল নেই। এটা সম্পূর্ন মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দশ্য প্রণোদিত ও মনগড়া। সংবাদ সম্মলন উপস্হিত  ছিলন কশব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগর সাধারণ সম্পাদক আ: লতিফ, ইউপি সদস্য আব্দুল জব্বার, আমিনুল ইসলাম, রমজান আলী প্রমুখ।
অপরদিকে প্রতিবাদ সভায় স্থানীয়রা বলেন, চকবালু এলাকার এক মহিলা স্বার্থ হাছিল না হলেই মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে আসছে। এভাবে বহু মানুষ ওই মহিলার ফাঁদে পড়ে  মিথ্যা হয়রানী মামলার শিকার হয়ছে।সেই সাথ অনৈতিক ভাবে হয়রানী করে অনেক পরিবারকে সর্বনাষ করে চলেছেন। আমরা গ্রামবাসী তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ। প্রতিবাদ করলেই মা ও মেয়ে ইমাশনাল ব্লাকমেইল করে।  সেই মহিলাকে কিছু অসাধু ব্যক্তি সহযাগিতা করার কারণ বার বার মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা ধর্ষন মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। একটি মহল বিষয়টি অন্যখাত প্রবাহিত করতে বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করে চেয়ারম্যান ও এলাকার মানুষের মান ক্ষুন করছে। এখনই ব্যবস্তা  গ্রহণ না করলে পুরা এলাকা ওই মেয়ে ও তার মা নষ্ট কর ফেলবে। আমরা ওই পরিবারকে ধিক্কার জানায় আর সুষ্ঠু তদন্ত করে ওই মহিলা ও তার মায়ের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যাবস্তা  গ্রহণের জন্য পুলিশ প্রশাসনর সুদষ্টি কামনা করছি।

Comments

comments

Close