আজ: ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, রাত ১:১০
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ গোবিন্দগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ ও অবৈধ ইট ভাটার মাঠে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর!

গোবিন্দগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ ও অবৈধ ইট ভাটার মাঠে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর!


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২২/০৩/২০২২ , ৭:২৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি:

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মুজিব শতবর্ষের বরাদ্দকৃত ২৫০টি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণ কাজ পুরোদমে এগিয়ে চলেছে। এরই অংশ হিসেবে এবার খোদ অবৈধ ইট-ভাটার মাঠে নির্মাণ করা হচ্ছে ৩২টি ঘর। এমন স্থানে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর নির্মাণ ও তা কতটুকু বসবাসের উপযোগী হবে এ নিয়ে সর্বত্র গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের ফাঁসিতলা টু ঘোড়ামাড়া সড়ক সংলগ্ন এআরবি ইট ভাটায় বরাদ্দকৃত ৩৭টি ঘরের মধ্যে নির্মাণ করা হচ্ছে ৩২টি ঘর। যেখানে বসবাস করবে ৩২টি পরিবার তাদের পরিজন নিয়ে। ইট ভাটার ক্ষতিকর দিকগুলো বিবেচনা না করেই এখানে নির্মাণ করা হচ্ছে ঘরগুলো। যা সচেতন মহলে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে।

এলাকাবাসী জানান, ইট ভাটাটি অনেক পুরাতন। প্রায় ২০ বছর আগে এ ভাটায় সুউচ্চ চিমনি নির্মাণ করা হয়। এটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। এছাড়া ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য রয়েছে ঝুঁকির মুখে। প্রশাসনের লোকেরা দেখও না দেখার; জেনেও না জানার ভাব করছে। তাদের এমন ভাবনা- পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য সহ ঝুঁকিপূর্ণ চিমনির নিচে নির্মাণ করা আশ্রয়হীনদের আশ্রয় যেন অভিশাপ হয়ে না দাঁড়ায়।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, আশ্রয়ণ প্রকল্প-১ এর অধিনে এর আগে এ উপজেলায় প্রায় ৩০০টি দৃষ্টিনন্দন ঘর নানা আলোচনা-সমালোচনার মধ্য দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। এবার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর মোট বরাদ্দকৃত ঘরের সংখ্যা ২৫০। এর মধ্যে কাটাবাড়ী ইউনিয়নে ১৭৫টি, দরবস্ত ইউনিয়নে ২৩টি, কামারদহে ৩৭টি, হরিরামপুর ও নাকাই ইউনিয়নে ১৫টি ঘর নির্মাণ চলমান রয়েছে। প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা।

ইটভাটায় আশ্রয়ণের ঘর প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন বলেন, আমরা ঘর নির্মাণ করছি, সুবিধাভোগীরা সেখানে বসবাস শুরু করলে তারাই ভাটা বন্ধে ব্যবস্থা নেবে।

ইট ভাটার বৈধতা সম্পর্কে মালিক আতিয়ার ও ম্যানেজার শাহ-আলমের বক্তব্য সংগ্রহে চেষ্টা করেও তা সম্ভব হয়নি।

অপরদিকে এ বিষয়ে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক অলিউল রহমান বলেন, ইট ভাটায় আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণ বিষয়টি আমি জানি না। তবে আমি নিজে পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেব।

Comments

comments

Close