আজ: ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, বিকাল ৫:১১
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে শিক্ষার্থীদের বরণে প্রস্তুত স্কুল-কলেজ

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে শিক্ষার্থীদের বরণে প্রস্তুত স্কুল-কলেজ


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ অনলাইন | প্রকাশিত হয়েছে: ১১/০৯/২০২১ , ৫:৫৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


সাইফুল ইসলাম,  শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ 
 ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সরকারি নির্দেশনার পর শুরু হয় বিদ্যালয় সমুহে পরিস্কার-পরি”ছন্নতা ও জীবানুনাশক প্রয়োগ অব্যাহত রয়েছে । শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও কলেজ সমুহে প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে শিক্ষকরা ও শ্রমিক নিয়োগ করে ঝোঁপঝাড় পরিষ্কার, শ্রেণী কক্ষ ধোঁয়া সহ অগ্রিম প্রস্তুতি শুরু করেন। তবে তুলনামূলক প্রাথমিক বিদ্যালয় সমুহের পরিস্কার পরিছন্নতা ছিল লক্ষ্যনীয়।
প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা যায়, কোভিড-১৯ সংক্রমনের কারণে টানা ১৮ মাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর সরকারি নির্দেশনায় আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্যালয় সমুহ খোলা হবে। গত বছর ১৮ মার্চ থেকে সারা দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়। এরপর অনলাইনে পাঠদান শুরু হলেও ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ শিক্ষার্থী নানা কারণে অনলাইনের সুযোগ থেকে বিরত ছিল। স্কুল খোলার সিদ্ধান্তে সরকারি নিয়ম মোতাবেক ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠান সমুহে পাঠদানে ক্লাস রুটিন তৈরি করা হয়েছে।
 সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ সমুহে পরিস্কার পরিছন্নতার তুলনায় গত এক সপ্তাহ যাবত প্রাথমিক বিদ্যালয় সমুহে শিক্ষকরা পরিস্কার-পরিছন্নতায় বেশ মনোনিবেশ ছিলেন। এসব বিষয়েও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারাও তদারকি করেন।  ভেদরগঞ্জে ১৫১ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১১টি মাদ্রাসা, ৪টি স্কুল এন্ড কলেজ, ৪টি কলেজ ও ৫৬ টি কেজি স্কুল খোলার প্রস্তুতি নিয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীরের ভেতর ও বাহিরের ঝোঁপঝাড়ও পরিছন্নতা এবং অফিস, শিক্ষক কক্ষ সবই জীবানুনাশক ছিটিয়ে রাখা হচ্ছে।
 ৯ নং চর ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাহাদাত হোসেন, ১৪০ নং শারমিন কামাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাহিমা তালুকদার, ১৮ নং দক্ষিণ মহিষার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর নাহার লতা ও ৬৪ নং চর ফেলিজ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলমগীর হোসেন বালা বলেন, সরকারি নির্দেশনার পরপরই আমরা শিক্ষকরা যৌথভাবে এক সপ্তাহ ধরে বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা থেকে শুরু করে পরিস্কার পরিছন্নতা শুরু করি। দু’দফা জীবানুনাশক প্রয়োগ, কক্ষ ধোঁয়া-মোছা করে নতুন রূপে বিদ্যালয়কে সাজানো হয়েছে। তাছাড়া মাক্স, হ্যান্ড সেনিটাইজারসহ নির্দেশনা মোতাবেক সকল প্রস্তূতি সম্পন্ন করেছি।
ভেদরগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান ও চর ভয়রা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ইতিমধ্যে আমরা সকল ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছি। তবে এরই মধ্যে আমরা স্কুলের পক্ষ থেকে মাক্স, হ্যান্ডসেনিটাইজার, তাপমাত্রার মেশিন ও ১টা আলাদা আইসোয়েলেসনের জন্য রুম ঠিক করে রেখেছি।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সুলতানা রাজিয়া ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একে এম ফজলুল হক বলেন, ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ পরিছন্ন ও শিক্ষা উপযোগী করে প্রস্তুত রাখতে সকল ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আমরাও যথারীতি পরিদর্শন করেছি এবং সবগুলো বিদ্যালয়েই প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর আল-নাসীফ বলেন, সরকারি নির্দেশনামত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত কিনা সে অনুযায়ী আমাদের নজরদারি ও নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। শিক্ষকদেরও পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।
করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকার পর আগামী ১২ সেপ্টেম্বর খুলছে দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।   নির্দেশনা মেনে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের প্রায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই শেষ করা হয়েছে ধোয়া মোছা ও পরিষ্কার রিচ্ছন্নতার কাজ।  । শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জ উপজেলায় বন্যার কারণে এবং নদী ভাঙনে চারটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: