আজ: ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা রমজান, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ৮:৩৯
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ রায়পুরে রাস্তা সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ

রায়পুরে রাস্তা সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ অনলাইন | প্রকাশিত হয়েছে: ০৬/০৪/২০২১ , ৫:২৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


জহিরুল ইসলাম টিটু ,লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভায় প্রায় এক কিলোমিটারের একটি গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারকাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কার্যাদেশ অনুযায়ী কাজ করার কথা থাকলেও নামমাত্র পিচ ঢালা হচ্ছে বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন।

পৌরসভার কর্মচারী ও এলাকাবাসী জানায়, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের প্রায় ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে পৌরসভার মধুপুর এলাকার আলতাফ ভুঁইয়ার ব্রিজ থেকে আলীরাজা পাটোয়ারী বাড়ি পর্যন্ত এক কিলোমিটার ও শহরের পোষ্ট অফিস সংলগ্ন মাছ বাজার প্রায় ১০০ মিটার সড়ক সংস্কারের জন্য গত বছর একাজটি পান সাবেক কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন সগির ও আহসান মাল। তা কিনে নেন উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ঠিকাদার শফিক খান ও তিনি গত মাসের (৫ মার্চ) কাজ শুরু করেন। শুরু থেকেই কাজে অনিময় দেখতে পায় এলাকাবাসী। পরে দু-একটি স্থানে প্রতিবাদও করেন স্থানীয় লোকজন।

স্থানীয় অন্য ঠিকাদারেরা জানান, এই এক কিলোমিটার রাস্তা উল্টিয়ে যেভাবে কার্পেটিং দিয়ে প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ করছে। তাও আবার ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের সামগ্রী। কাজ শেষ হতে না-হতেই এসব সিলকোট উঠে যাবে। বিভিন্ন স্থানে গর্তের সৃষ্টি হবে।

রায়পুর পৌরসভার মধুপুর এলাকার বাসিন্দা নুর মোহাম্মদ ও নুর নবি বলেন, তাদের সামনেই নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করা হচ্ছে। কিন্তু পৌরসভার কর্মকর্তারা অজানা কারণে মুখ বন্ধ করে আছেন। বাধা দিলে উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দেয় ঠিকাদার।

মধুপুর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ নেতা নিজাম চৌধুরী বলেন, পৌরসভার কিছু কর্মকর্তা এ অনিয়মের সঙ্গে জড়িত। সে কারণে কাজে অনিয়ম করতে পারছেন ঠিকাদার ও সাবেক ওই যুবলীগ নেতা।

সাব-কন্ট্রাক্টর শফিক খান মুঠোফোনে বলেন, ‘গত বছর (২০২০ সাল) রাস্তাটি পৌরসভার সাবেক দুই কাউন্সিলরের কাছ থেকে কিনে নিয়ে সংস্কার করছি। রাস্তা উল্টিয়ে আরসিসি কার্পেটিং করা হবে। কোনো অনিয়ম বা নিম্নমানের কংকর দেয়া হয় না। গ্রামবাসী কি বুঝে? পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলেন।’

পৌরসভার ইঞ্জিনিয়ার জুলফিকার বলেন, ‘প্রায় এক কিলোমিটার ও পাশে ৮ ফিট ৩ ইঞ্চির কাজে কোনো ত্রুটি হচ্ছে না। কাজের সময় আমাদের লোকজন উপস্থিত থাকেন। তারপরও দেখবো।’

পৌরসভার মেয়র ইসমাইল খোকন বলেন, ‘আমি তো জানি কাজ সঠিক হচ্ছে। সঠিকভাবে কাজ করার জন্য ঠিকাদারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে কাজের গুণগত মান খারাপ এটাও বলা যায় না। তারপরও তিনি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব।’

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: