আজ: ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি, বিকাল ৪:৩৭
সর্বশেষ সংবাদ
ফেসবুক থেকে শুনছুইন ত মরছুইন !

শুনছুইন ত মরছুইন !


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৮/০১/২০২১ , ৪:২২ অপরাহ্ণ | বিভাগ: ফেসবুক থেকে


এক.
এই গল্পটা অনেক আগে শোনা। সেই শোনা গল্পটাই শুনাই আপনাদের।
ঢাকা থেকে এক পর্যটক গেছেন ময়মনসিংহ শহরে। প্রাচীণ শহরটিতে তিনি রিকসায় ঘুরছেন আর মুগ্ধ হচ্ছেন। এরমধ্যেই তার রিকসার গতিরোধ করেছে এক ছিনতাইকারী। এরপর সে তার পেটে ছুরি ধরে বলছে:
-যা আছে বাইর করুইন। তাড়াতাড়ি।
ছিনতাইকারীর মুখে সম্মানজনক ”আপনি” সম্বোধন শুনে পর্যটক একইসাথে মুগ্ধ, বিস্মিত এবং ভীত— এই তিনটাই হলেন একসাথে। অনুভূতির ককটেল আরকি! আর এরকম একটা ঘটনায় না হেসেও পারা যায় না। এই পর্যটকও তাই ফিক করে হেসেও ফেললেন! এটা দেখে ছিনতাইকারী ত চটে গেলেন। তখন পর্যটককে ছিনতাইকারী দিলেন এক ধমক, এইভাবে:
আবার হাসছুইন? হাসছুইন ত মরছুইন।
দুই.
জীবনে সহজলভ্য হওয়া যাবে না। এমনকি বাচ্চা-কাচ্চার কাছেও না। আমার বাচ্চারা কোক চায়, পেপসি চায়; দিই না। রেস্টুরেন্টে গেলে খাবারের সাথে ফ্রেশ পানি অফার করি। বাধ্য হয়ে সেগুলোই গিলে ওরা। ছয়মাসে বা বছরে একবার দুবার হয়ত খেয়েছে এসব। কিন্তু আগের সেই ধারাবাহিক কোক-পেপসি বন্ধ। এই কোমল পানীয় যে কতটা কঠিন, তা বলে বুঝানো যাবে না। এ নিয়ে অনেকবার নানা সময় লিখেছিও।
২০১৬ সাল থেকে বাসায় আমি কোক-পেপসি আনি না। এভাবে বাচ্চাকাচ্চাদের অনেক মন্দ অভ্যাসকে সরাসরি ”না” বলে দিয়েছি। একবারে সব বন্ধ করা কঠিন। তাই ধীরে ধীরে ’না’কে বাস্তবায়ন করেছি। আপনারাও পরিবারে পেপসি-কোকের মত কোমলপানীকে ”না” বলুন। সুস্থ্য থাকার বিকল্প নাই।
কোক-পেপসির মত আসক্তিকর পানীয় থেকে শিশুদের দূরে রাখুন। বাচ্চা-কাচ্চারা চাইবেই। ওদের কথা সব সময় শুনবার দরকার নাই। ”শুনছুইন ত পরিবার নিয়ে মরছুইন।”
লেখক: লুৎফর রহমান হিমেল , সম্পাদক দ্যা রিপোর্ট ডট লাইভ । 

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: