আজ: ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, রাত ১২:৫৫
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ ও শিল্প, জাতীয়, বিজনেস সলুশন, শেয়ার বাজার বাজার মূলধনে দেশের শীর্ষে ১০ কোম্পানি

বাজার মূলধনে দেশের শীর্ষে ১০ কোম্পানি


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০২/০১/২০২১ , ৬:০৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: অর্থ ও শিল্প,জাতীয়,বিজনেস সলুশন,শেয়ার বাজার


দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জের (ডিএসই) তালিকাভূক্ত কোম্পানিগুলোর মধ্যে বাজার মূলধনে শীর্ষ অবস্থানে রয়ছে মোবাইল ফোন অপারেটর খাতের কোম্পানি গ্রামীণফোন (জিপি)। মাত্র এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বেড়েছে ১ লাখ ৩২৭ কোটি টাকা।

জানা যায়, ২০২০ সালের ডিসেম্বর শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৬৮৯ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা।

এদিকে, সদ্য বিদায়ী বছরে জিপির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৪৭ টাকা ১০ পায়সা। আর বছরজুড়ে কোম্পাটির শেয়ার দর বেড়েছে ২৭ দশমিক ২০ শতাংশ।

বাজার মূলধন বাড়ার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ইলেকট্রনিকস খাতের দেশীয় জায়ান্ট কোম্পানি ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। কোম্পানিটির মূলধন এক বছরের ব্যাবধানে বেড়েছে ২ লাখ ৬৭ হাজার ১২৩ কোটি টাকা।

সদ্য বিদায়ী বছর শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৩৭ হাজার ৪০৭ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো মাত্র ৭০ হাজার ২৭৯ কোটি টাকা। মাত্র এক বছরে ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়লো ২ লাখ ৬৭ হাজার ৫২৮ কোটি টাকা।

সূত্রমতে, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে কোম্পনিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১১৩ টাকা ৮০ পয়সা এবং বছরজুড়ে শেয়ার দর বেড়েছে ৩৮০ দশমিক ১০ শতাংশ।

বাজার মূলধনে তালিকার তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশের (বেটবিসি)। ২০২০ এর ডিসেম্বর শেষে কোম্পনিটির বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ১২ হাজার ৫৪৪ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ১ লাখ ৬১ হাজার ৯৮২ কোটি টাকা ছিলো। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বেড়েছে ৫০ হাজার ৫৬২ কোটি টাকা।

সদ্য সমাপ্ত বছর শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৮০ টাকা ৮০ পয়সা। আর বছরজুড়ে দর বেড়েছে ৩১ দশমিক ২০ শতাংশ।

তালিকার চতুর্থ অবস্থানে থাকা ওষুধ খাতের কোম্পানি স্কয়ার ফার্মার বাজার মূলধন সদ্য সমাপ্ত বছর শেষে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৯৪ হাজার ৫৭৬ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ১ লাখ ৫৬ হাজার ৪৩৭ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়লো ৩৮ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা।

২০২০ বছর শেষে স্কয়ার ফার্মার শেয়ার মূল্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১৯ টাকা ৫০ পয়সা। আর বছরজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার মূল্য বেড়েছে ২৪ দশমিক ৪০ শতাংশ।

বাজার মূলধনে পঞ্চম স্থানে রয়েছে সদ্য তালিকাভূক্ত কোম্পানি রবি আজিয়াটা লিমিটেড। কোম্পানিটির বাজার মূলধন ডিসেম্বর শেষে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৫৬ হাজার ৯০ কোটি টাকা। অন্যদিকে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে কোম্পানির বাজার মূলধন ছিলো ৫২ হাজার ৩৭৯ কোটি টাকা।

গত ২৪ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু করে। তালিকাভুক্তির মাত্র ২ সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বেড়েছে ১ লাখ ৩ হাজার ৭১১ কোটি টাকা বা ১৯৮ শতাংশ। ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ টাকা ৮০ পয়সা।

তালিকার ষষ্ঠ অবস্থানে থাকা বিদ্যুৎ খাতের উনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেডের (ইউপিজিডিসিএল) বাজার মূলধন সদ্য সমাপ্ত বছর শেষে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৩৮ হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ১ লাখ ২৯ হাজার ২৭২ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়লো ৯ হাজার ৫৯১ কোটি টাকা।

৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬৩ টাকা ৫০ পয়সা। আর সমাপ্ত বছরজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ৭ দশমিক ৪০ শতাংশ।

তালিকার সপ্তম অবস্থানে থাকা ওষুধ খাতের কোম্পানি রেনেটার সদ্য বছর শেষে বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৯৮ হাজার ৫৯ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ৯৫ হাজার ৯৮৬ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়লো ২ হাজার ৭৩ কোটি টাকা।

২০২০ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁরিয়েছে ১ হাজার ১০৬ টাকা ৯০ পয়সা। আর বছরজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ২ দশমিক ২০ শতাংশ।

অষ্টম স্থানে থাকা শেয়ারবাজারের তালিকভুক্ত ওষুধ খাতের কোম্পানি বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের বাজার মূলধন সদ্য সমাপ্ত বছর শেষে দাঁড়িয়েছে ৮৪ হাজার ৯৮৪ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ২৭ হাজার ৫৩৭ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়ালো ৫৭ হাজার ৪৪৭ কোটি টাকা।

৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯০ টাকা ৫০ পয়সা। আর বছরজুড়ে দর বেড়েছে ২০৮ দশমিক ৬০ শতাংশ।

তালিকার নবম স্থানে থাক সরকারি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) বাজার মূলধন সমাপ্ত বছর শেষে দাঁড়িয়েছে ৭৫ হাজার ৮২৩ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ৫৮ হাজার ৯৪০ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়লো ১৬ হাজার ৮৮৩ কোটি টাকা।

সদ্য সমাপ্ত বছর শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৮ টাকা ৮০ পয়সা। আর বছরজুড়ে শেয়ার দর বেড়েছে ২৮ দশমিক ৬০ শতাংশ।

তালিকার দশম স্থানে উঠে আসা বহুজাতিক কোম্পানি মেরিকো বাংলাদেশের বাজার মূলধন সমাপ্ত বছর শেষে হয়েছে ৬৭ হাজার ৩৭২ কোটি টাকা। যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিলো ৪৯ হাজার ৫৫৯ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যাবধানে কোম্পানিটির বাজার মূলধন বাড়ালো ১৭ হাজার ৮১৩ কোটি টাকা।

৩১ ডিসেম্বর ২০২০ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৩৮ টাকা ৮০ পয়সা। আর বছরজুড়ে শেয়ার দর বেড়েছে ৩৫ দশমিক ৯০ শতাংশ।

উল্লেখ্য, দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন ২০২০ সালে ইতিহাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে৷ বছরটিতে ২০১৯ সালের থেকে বিনিয়োগ বৃদ্ধি পেয়েছে ১ লাখ ০৮ হাজার কোটি টাকা। যা শতকরা হিসেবে গত বছরের চেয়ে ৩২ দশমিক ০১ শতাংশ বেশি।

জানা যায়, ২০২০ সালের শেষ কার্যদিবস ৩০ ডিসেম্বর (বুধবার) ডিএসই’র বাজার মূলধন বেড়ে ৪ লাখ ৪৮ হাজারে দাঁড়িয়েছে। যা বছরটির সর্বোচ্চ বাজার মূলধন। আর বছরটির সর্বনিম্ন বাজার মূলধন ছিলো ২ লাখ ৮৭ হাজার কোটি টাকা।

এর আগে ২০১৯ সালের শেষ কার্যদিবস ৩১ ডিসেম্বর ডিএসই’র বাজার মূলধন ছিলো ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা। সেখান থেকে ১ লাখ ০৮ হাজার কোটি টাকা বেড়ে ডিএসইর বাজার মূলধনে ইতিহাস গড়লো করোনার বছর।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: