আজ: ১৩ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ১১:৫৯
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় সরকারি ভূমি দখল দণ্ডনীয় ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে

সরকারি ভূমি দখল দণ্ডনীয় ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১৬/১১/২০২০ , ৭:৪৭ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়


সরকারি জমি অবৈধ দখলকে দণ্ডনীয় ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য করে শীগগিরই আইন সংশোধন করে যুগোপযোগী করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

সোমবার ‘হাতের মুঠোয় ভূমিসেবা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে অনলাইনভিত্তিক ভূমি উন্নয়ন কর ব্যবস্থাপনা সফটওয়্যার পাইলটিং (২য় পর্যায়) কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে ভূমিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

২য় পর্যায়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্যতীত দেশের ৬১টি জেলার ৪৮২টি উপজেলা/সার্কেল/মেট্রো থানা ভূমি অফিস থেকে ১টি করে মোট ৪৮২টি পৌর/ইউনিয়ন ভূমি অফিসের এক বা একাধিক মৌজা ভূমি উন্নয়ন কর ব্যবস্থাপনা সফটওয়্যার পাইলটিং কার্যক্রমের আওতায় আনা হবে। ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ভূমি সংস্কার বোর্ড এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। উল্লেখ্য, ২য় পর্যায়ের কাজ ডিসেম্বরে শুরু করার কথা থাকলেও দক্ষতা বৃদ্ধির ফলে এক মাস পূর্বেই শুরু করা হয়েছে।

ভূমিমন্ত্রী এ সময় আরও বলেন, ভূমি মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ বিধির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)-এর মাধ্যমে নন-ক্যাডার পদমর্যাদার কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হবে যেন মাঠ পর্যায়ের কাজে গতিশীলতা আসে।

আমরা ভূমি সেক্টরে টেকসই সিস্টেম এবং সক্ষমতা উন্নয়নের উপর জোর দিচ্ছি যাতে ভূমি খাতের উন্নয়ন দৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড়ায়। জনগণ যেন ভূমি অফিসে না এসেই বেশিরভাগ সেবা গ্রহণ করতে পারেন আমরা সে উদ্দেশ্যেই কাজ করে যাচ্ছি- সাইফুজ্জামান চৌধুরী এসময় বলেন।

এ সময় ভূমিমন্ত্রী জমির নামজারি ও নিবন্ধন সমন্বয় কার্যক্রমের সদয় অনুমোদন প্রদান করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ভূমি সচিব মোঃ মাক্ছুদুর রহমান পাটওয়ারী এ সময় জানান, উপমহাদেশে কালেক্টরেট ব্যবস্থার গোড়াপত্তনের প্রায় ২৪৭ বছরের পর ভূমি উন্নয়ন কর তথা জমির খাজনা গ্রহণের সিস্টেম বদলাচ্ছে ভূমিমন্ত্রীর নেতৃত্বে।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ এনডিসি, জামালপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক এবং গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা। এ সময় চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ভূমি উন্নয়ন কর ব্যবস্থাপনা সফটওয়্যারের ১ম পর্যায়ের পাইলটিং কার্যক্রম পরিচালনায় তাঁর অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা।

ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াকুব আলী পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ভূমি মন্ত্রণালয় ও ভূমি সংস্কার বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্যতীত ৬১ জেলার জেলা প্রশাসকবৃন্দ সহ মাঠ পর্যায়ে কর্মরত জেলা প্রশাসন ও উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকর্তাগণ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: