আজ: ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ১:০৯
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ এনজিও থেকে কিস্তির চাপে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবন, গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

এনজিও থেকে কিস্তির চাপে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবন, গর্ভবতী নারীর মৃত্যু


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১২/১১/২০২০ , ১২:৫০ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


বগুড়া: বগুড়ার সদর উপজেলায় কিস্তির চাপ সইতে না পেরে স্বামী-সন্তানসহ বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে বুলবুলি বেগম (২০) নামে এক গর্ভবতী নারীর মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বুলবুলি সদর উপজেলার গোকুল ইউনিয়নের নওদাবগা এলাকার মহিদুল ইসলাম দিনুর স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোকুলের নওদাবগা এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে মহিদুল ইসলাম দিনু (২৬) শ্রমিকের কাজ করেন। করোনার কারণে মহিদুল ঠিকমতো কাজ না পাওয়ায় বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে বাড়িতে মুদি দোকান দেন। কিন্তু দোকানের বেচা-কেনাও ঠিকমতো হচ্ছিলো না। এদিকে এনজিও থেকে কিস্তির জন্য চাপ দিতে থাকে। এর একপর্যায়ে মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) রাতে মহিদুল ইসলাম ও তার তিন মাসের গর্ভবতী স্ত্রী বুলবলি বেগম এবং একমাত্র শিশু কন্যা মেঘনাসহ তিনজন আত্মহত্যার জন্য বিশাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করে। বিষয়টি প্রতিবেশীরা জানতে পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধনীন অবস্থায় বুধবার বিকেলে বুলুবুলি বেগমের মুত্যু হয়।

মহিদুল ইসলাম দিনুর মা মর্জিনা বেগম জানান, হাসপাতালে মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট করছে তার ছেলে ও নাতনি। এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে পরিশোধ করতে না পারায় এনজিওর লোকজন প্রচন্ড চাপ দিতে থাকে। তাদের চাপ সইতে না পেরে মহিদুল স্ত্রী-সন্তান নিয়ে আত্মহত্যা করার জন্য গ্যাস টেবলেট সেবন করেন।

বগুড়া ছিলিমপুর (মেডিক্যাল) পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুল আজিজ মণ্ডল বলেন, একই পরিবারের ৩ জন গ্যাস টেবলেট সেবন করায় তাদের মেডিক্যালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। অপর ২ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: