আজ: ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ১:৩১
সর্বশেষ সংবাদ
বিনোদন ‘আশ্রম ২’কে আইনি নোটিস, মুখ খুললেন প্রকাশ ঝা

‘আশ্রম ২’কে আইনি নোটিস, মুখ খুললেন প্রকাশ ঝা


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৭/১১/২০২০ , ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: বিনোদন


২৯ অক্টোবর ট্রেলার মুক্তির পর থেকেই বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে প্রকাশ ঝা পরিচালিত আশ্রম চ্যাপ্টার ২। কট্টরপন্থীরা এই ওয়েব সিরিজকে ‘হিন্দু বিরোধী’ বলে দাবি করেছেন। পরিচালক প্রকাশ ঝা, এবং ওয়েব সিরিজটি যে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে দেখানো হবে, তাঁদেরকে আইনি নোটিসও পাঠিয়েছে কারণি সেনা। এবার এবিষয়েই মুখ খুললেন প্রকাশ ঝা।
সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে প্রকাশ ঝা বলেন, ”আমি কে ওদের দাবি নিয়ে বিচার করার? প্রথম মরসুমে আমাদের ৪০০ মিলিয়নেরও বেশি ভিউ হয়েছে। আমি মনে করি এবিষয়ে দর্শকরাই সিদ্ধান্ত নেবেন। সবচেয়ে ভালো হয় এবিষয়টি যদি আমরা দর্শকদের উপর ছেড়ে দি।”
প্রসঙ্গত ১১ নভেম্বর থেকে এমএক্স প্লেয়ার-এ দেখা যাবে ‘আশ্রম চ্যাপ্টার ২’। আশ্রম চ্যাপ্টার ২’- ‘বাবা নীরালা’র ভূমিকায় রয়েছেন ববি দেওলকে। প্রকাশ ঝা পরিচালিত ‘আশ্রম’ সিরিজের প্রথমভাগে অবশ্য ‘বাবা নীরালা’র ভালো দিকটিই তুলে ধরা হয়েছিল। তবে দ্বিতীয়ভাবে ধীরে ধীরে খুলে যেতে চলেছে ‘বাবা নীরালা’র মুখোশ। ছবির ট্রেলারে ধর্ষক, খুনি, মাদক কারবারীকে হিসাবে তুলে ধরা হয়েছে ‘স্ব ঘোষিত ধর্মগুরু বাবা নীরালা’কে। নিজেরই আশ্রিতা এক ভক্তকে তাঁর অজান্তে মাদকে আচ্ছন্ন করে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে বাবা নীরালার বিরুদ্ধে। আর এই ঘটনার পরই বাবার আসল চেহারা প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে। ‘আশ্রম চ্যাপ্টার ২’- ট্রেলার নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে অভিনেতা ববি দেওল প্রশ্ন তুলেছেন তবে কি ‘রক্ষক ই ভক্ষক’? ‘রাবণ নাকি পাপি?’


সম্প্রতি অক্ষয় কুমারের সিনেমা ‘লক্ষ্মী বম্ব’-এর বিরুদ্ধেও বেশ কয়েকটি হিন্দু সংগঠন তেড়ে ওঠে। একের পর এক বিক্ষোভের জেরে শেষ পর্যন্ত ‘লক্ষ্মী বম্ব’-এর নাম পালটে করা হয় ‘লক্ষ্মী’। কট্টরপন্থীদের দাবি, হিন্দু দেবী লক্ষ্মীর সঙ্গে ‘বম্ব’ শব্দটি একেবারেই মানানসই নয়। এমনই অভিযোগে পরিচালক রাঘব লরেন্সের সিনেমার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেওয়া হয়।
এর আগে বনশালির ‘পদ্মাবত’-এর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিল কারণি সেনা। হিন্দু রানি পদ্মাবতীর সঙ্গে আলাউদ্দিন খলজির অভিনয় নিয়ে আপত্তি জানানো হয়। শেষ পর্যন্ত বনশালির ওই সিনেমার নাম ‘পদ্মাবতী’ থেকে পালটে করা হয় ‘পদ্মাবত’। পাশাপাশি বেশ কয়েকটি দৃশ্যও ছেঁটে ফেলতে হয় পরিচালককে।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: