আজ: ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ১২:১২
সর্বশেষ সংবাদ
আন্তর্জাতিক লাদাখে সংঘাতের আশঙ্কা

লাদাখে সংঘাতের আশঙ্কা


পোস্ট করেছেন: অনলাইন ডেক্স | প্রকাশিত হয়েছে: ০৬/১১/২০২০ , ৯:০৮ অপরাহ্ণ | বিভাগ: আন্তর্জাতিক


ভারত-চীন সীমান্তের পূর্ব লাদাখে চলমান উত্তেজনা ও অচলাবস্থার বিষয়ে সামরিক কোর কমান্ডারদের অষ্টম পর্বের আলোচনা শুরু হয়েছে। আজ (শুক্রবার) সকাল সাড়ে ৯টায় ওই সংলাপ শুরু হয়। অষ্টম বারের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে লাদাখের চুসুলে ।

পূর্ব লাদাখের নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) ভারতীয় এবং চিনা সেনার মধ্যে বৃহত্তম সংঘাতের সম্ভাবনার কথা জানালেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) জেনারেল বিপিন রাওয়ত। সেই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ,পাকিস্তানের সঙ্গে চীন হাত মেলানোর ফলে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার ব্যাঘাত ঘটার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তিনি আরো বলেন,চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি লাদাখে নিজেদের কৃতকর্মের ‘অপ্রত্যাশিত ফল’ ভোগ করছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে খবর পাওয়া যায়, প্যাঙ্গং লেকের উত্তর তীরে ফিঙ্গার এরিয়া ৫ থেকে ৮ পর্যন্ত ভারতীয় সেনা যাতে আগের মতো টহল দিতে পারে বৈঠকে এই দাবি তোলা হয়। এছাড়া সংঘাতের নতুন ক্ষেত্র অর্থাৎ প্যাঙ্গং লেকের দক্ষিণাঞ্চল থেকে চীনা সেনা সরানোর দাবি জানাচ্ছে তারা।

জেনারেল রাওয়ত স্পষ্ট জানিয়েছেন, চিনা সশস্ত্র বাহিনীর আগ্রাসী আচরণের কারণেই পূর্ব লাদাখে সমস্যা তৈরি হয়েছে। ভবিষ্যতে তারা আরও বেপরোয়া হতে পারে। তিনি বলেন,নিরাপত্তা সংক্রান্ত ভাবনা থেকেই সীমান্তে সংঘাতের মত ঘটনা ঘটতে পারে।পাশাপাশি ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি আয়োজিত ভার্চুয়াল সভায় তিনি বলেন,এলএসি বদলে দেওয়ার কোনও প্রচেষ্টা আমরা বরদাস্ত করব না।

প্রকৃতপক্ষে, ভারত প্যাঙ্গং লেকের ওই অঞ্চলের চূড়াগুলো কৌশলগতভাবে দখল করেছিল চীন। চীনা সেনাবাহিনীরা ফিঙ্গার ৪ এলাকার বাহিরে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে টহল দিতে দেয়নি। কিন্তু ওই অঞ্চলে ভারত তার উপস্থিতি শক্ত ভাবে প্রকাশ করেছে। গত ১২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত সর্বশেষ সংলাপে চীন আংশিকভাবে ওই এলাকা থেকে সেনা প্রত্যাহারের প্রস্তাব করলেও ভারত তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

গত মে মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে পূর্ব লাদাখে উভয় দেশের সেনাবাহিনী মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। এরিমধ্যে দু’দেশের মধ্যে চলমান বিরোধ সাত মাস পার হয়ে গেছে। ওই সময়ের মধ্যে সপ্তম পর্যায়ের আলোচনা হয়েছে, কিন্তু কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে সংলাপ সত্ত্বেও এখনও পর্যন্ত কোনও সমাধান পাওয়া যায়নি।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: