আজ: ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, মঙ্গলবার, ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১২ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী, রাত ১২:২৪
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য অ্যাজমা ও স্থূলতার মধ্যে সম্পর্ক

অ্যাজমা ও স্থূলতার মধ্যে সম্পর্ক


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৫/১১/২০১৯ , ১২:২০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: স্বাস্থ্য


অ্যাজমা প্রাণ সংহারকারী রোগ। একবার ধরলে ছাড়ানো মুশকিল। এখন পর্যন্ত তেমন কার্যকরী ওষুধ আবিষ্কার হয়নি। অথচ প্রতিবছর বাড়ছে রোগীর সংখ্যা। তবে উচ্চ শ্রেণির মানুষের মধ্যে এ রোগের প্রবণতা বেশি। মূলত কায়িক শ্রমের পরিবর্তে মানসিক শ্রম যিনি বেশি করেন, তার ক্ষেত্রে দৈহিক স্থূলতা বাড়তে পারে। এর সঙ্গে রয়েছে নিয়ন্ত্রণহীন খাওয়াদাওয়া।

অন্যদিকে অ্যাজমা রোগী নিয়ে ধারণা করা যায়, বেশিরভাগ সময় ঘরের মধ্যে কাটান যারা, তারা ঘরের জীবাণু, পোষা প্রাণীর জীবাণু এবং ছত্রাকের সম্মুখীন বেশি হওয়ায় এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। সেই সঙ্গে রয়েছে শারীরিক পরিশ্রম না করা। এরপর এমন কিছু ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় পাওয়া যায়, যেগুলো অ্যাজমা ও স্থূলতার আন্তঃসম্পর্কের দিকে ইঙ্গিত করে। তবে সবচেয়ে বেশি গবেষণা চলছে অ্যাজমা ও স্থূলতার মধ্যে কোনো জেনেটিক সংযোগ আছে কিনা।

গবেষকরা বলছেন, অ্যাজমা ও স্থূলতার সম্পর্ক কোনো জেনেটিক নয় বরং শারীরিক। স্থূল ব্যক্তির শারীরিক চাহিদা পূরণে ফুসফুসের অতিরিক্ত কাজ করতে হয়। ফলে অ্যাজমার সূত্রপাত ঘটে। স্থূলতার আরেক কারণ শারীরিক ব্যায়ামের অভাব। অ্যাজমার উৎপত্তিতে এটিরও হাত আছে। ব্যায়ামের সময় গভীর শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে হয়। এতে শ্বাসতন্ত্রের গভীরতম অঙ্গগুলো প্রসারণ ও সঙ্কোচন হতে থাকে। ফলে অঙ্গগুলো শক্তিশালী হয়ে ওঠে এবং অ্যাজমা প্রতিরোধে সক্ষম হয়। আশ্চর্যজনক বিষয় হলো, যে উপাদানগুলো স্থূল ও অ্যাজমা তৈরিতে ভূমিকা রাখে, সেগুলো কখনো সম্পর্কযুক্ত, আবার কখনো একটি আরেকটির প্রকোপ বাড়িয়ে দেয়।

শ্বাসকষ্টের কারণে শিশুরা বেশিরভাগ সময় ঘরে থাকতে বাধ্য হয়। ফলে তাদের শারীরিক ক্যালরি পরিমাণমতো হয় না। ফলে স্থূলতায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। যেসব কিশোর-কিশোরী স্থূল হয়, তারা হীনমন্যতায় ভুগে থাকে। তাদের আত্মবিশ্বাস কমে যায়। হতাশার কারণে অ্যাজমার রোগী ওষুধ ব্যবহারে অনীহা প্রকাশ করে। ফলে অ্যাজমার প্রকোপ আরও বাড়ে। অ্যাজমার জন্য রোগী ঘরবন্দি হয়। অর্থাৎ হাঁটাচলা, ব্যায়াম ত্যাগ করতে হয়। এতে রোগী আরও মোটা হয়ে যায়। এ সত্যটি মানতেই হবে, টেলিভিশন ও ভিডিও গেমস দেখার প্রবণতা স্থূল ও অ্যাজমা উভয় রোগের প্রকোপ বাড়িয়ে দিতে বেশ ভূমিকা রাখে।

Comments

comments

Close