আজ: ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ১:৩২
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ হরিপুর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় ১৪৪ ধারা জারি

হরিপুর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় ১৪৪ ধারা জারি


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৬/১১/২০১৯ , ২:৪৭ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


হরিপুর প্রতিনিধি:  ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার ইউনিয়ন আ.লীগের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা বাতিল করে ওই স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। সেই সাথে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বর্ধিত সভার স্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে

বুধবার ৬ই নভেম্বর সকাল ১১টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল করিম এ আদেশ জারি করেন।

তিনি বলেন, হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের রুহিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বর্ধিত সভাকে ঘিরে আওয়ামীলীগের দু-গ্রুপের সংঘর্ষ হওয়ার আশংকায় সভা শুরুর আধা ঘন্টা পূর্বে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে রুহিয়া গ্রাম থেকে নুরুল হুদার বাড়ী থেকে লাঠি-সোটা উদ্ধার সহ তাকে গ্রেফতার করে হরিপুর থানা পুলিশ।

জানা গেছে, চলমান আওয়ামীলীগের কাউন্সিলের জন্য হরিপুর উপজেলার রুহিয়া নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে বুধবার সকাল ১১টায় বকুয়া ইউনিয়ন আ.লীগের বর্ধিত সভার দিন ও তারিখ নির্ধারণ করা হয়। তবে দলটির একাধিক নেতাকর্মীকে বর্ধিত সভায় আমন্ত্রণ না করায় এবং বর্ধিত সভার স্থান ইউনিয়নের কেন্দ্রবিন্দুতে না করে দুরে অনত্র সরিয়ে নিয়ে আয়োজন দুপক্ষের মধ্যে দ্বন্দের সৃষ্টি হয়।

ইউনিয়ন আ’লীগের একাধিক নেতার অভিযোগ, কমিটির অনুমোদন ছাড়াই নতুন করে সদস্য অর্ন্তভুক্ত করায় এ ধরনের দন্দ্ব লেগেই আছে। ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা আ.লীগের চিত্র একই রকম। আর এ দন্দ্ব সৃষ্টি করেছে আ.লীগের কিছু সুবিধাবাদি নেতা। যার জন্যই এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

বকুয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার ও বহরমপুর ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম জানান, বর্ধিত সভা হবে কাদের নিয়ে। যদি ত্যাগী নেতারা বাদ পরে তাহলে কোন ভাবেই বর্ধিত সভা হতে দেয়া হবে না। দীর্ঘ দিন ধরে যারা আ.লীগের হাল ধরে আছে তাদের বাদ দিয়ে বর্ধিত সভার আয়োজন করায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।ইউনিয়ন আ’লীগের অধিকাংশ সদস্যকে বাদ দিয়ে মনগড়া ভাবে একপক্ষ বর্ধিত সভার আয়োজন করে। আর বর্ধিত সভা সফল করতে একপক্ষের লোকজন রাত থেকে লাঠিসোঠা নিয়ে অবস্থান করায় একজনকে রাতেই একজনকে আটক করে পুলিশ। আমরা চাই সুষ্ঠু পরিবেশের মধ্য দিয়ে সবাইকে সাথে নিয়ে উপজেলা আ’লীগের সকল কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হোক। তা না হলে উপজেলা আ’লীগের প্রতিটি সভায় এ ধরনের বিশৃংখলার সৃষ্টি হবে। এমন অবস্থা কেউ মেনে নিতে পারবে না।

হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান মুঠোফোনে জানান, এর আগে বুধবার (৯ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৫টায় উপজেলা আ.লীগের দলীয় কার্যালয়ে বর্ধিত সভায় আ.লীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল। গতকাল থেকে আয়োজিত বর্ধিত সভায় একই ঘটনার আশংকা করেছি আমরা। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তাছাড়া রাতে পুলিশ ঘটনাস্থলের পার্শ্বেই একটি বাড়ী থেকে লাঠি-সোটাসহ একজনকে আটক করেছে।

Comments

comments

Close