আজ: ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা রমজান, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ৮:৩৪
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ শ্রীপুরে বনের জমি দখল করে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণের অভিযোগ

শ্রীপুরে বনের জমি দখল করে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণের অভিযোগ


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৮/০৯/২০১৯ , ৪:৪৬ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


মহিউদ্দিন আহমেদ, শ্রীপুর প্রতিনিধি:
গাজীপুরের শ্রীপুরে সাতখামাইর, বলদীঘাট, শিমলাপাড়া বিটে বনের জমি অবৈধ ভাবে দখল করে পাকা ঘরবাড়ি নির্মাণের প্রতিযোগিতা চলছে।কাওরাইদ ইউনিয়ন, মাওনা ইউনিয়ন, রাজাবাড়ি প্রহলাদপুর ইউনিয়ন ও তেলিহাটি ইউনিয়ন এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বনের সংরক্ষিত গেজেট ভুক্ত প্রায় হাজার বিঘা জমি এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল ও স্থানীয় কতিপয় দালাল তদবিরবাজ ব্যক্তিদের যোগসাজশে প্রত্যক্ষ পরোক্ষ সহযোগিতায় বনের বন কর্মকর্তাদের   ম্যানেজ করে দখল করার প্রতিযোগিতায় মাঠে নেমেছে।
এদিকে ভূমি দালাল খেকো আবার শুধু দখলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, জমি দখল করে নিজের কব্জায় রেখে পজিশন নিয়ে বিক্রির মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ইউনিয়ন গুলোতে এর ফলে কেউ আঙ্গুল ফুলে হচ্ছে কলা গাছ। আবার অন্যদিকে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী বনাঞ্চল। এর কারণে বৈরী আবহাওয়াসহ জলবায়ুর ক্ষতি সাধন হচ্ছে। এ বিষয়ে বলদীঘাট বিট কর্মকর্তা মোঃ আয়ুব খান জমি দখলের বিষয়টি স্বীকার করে জানান,  আমি নতুন যোগদান করেছি। তবে আমরা বসে নেই। ইতোমধ্যেই বনের জমি দখলের প্রায় ১৫-২০টি অবৈধভাবে নির্মিত ঘরবাড়ি উচ্ছেদসহ বন আইনে মামলা দিয়েছি।সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়,তেলিহাটি ইউনিয়নের উদয়খালী মোড়ের ২শ গজ দক্ষিণ পাশে পাঁচতলা ভবন নির্মাণের কাজ করছেন জহিরুল নামে এক ব্যক্তি, তার দেখাদেখি পাশের জমিতে সোহাগ নামের এক জন পাকা দালান ঘর নির্মানের কাজ শুরু করেছেন।এদিকে পোষাইদ গ্রামে মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে খোরশেদ মিয়া ৩/৪টি পাকা দালান ঘর নির্মাণ করেছে, ছাতিরবাজার এলাকার নয়ন মিয়াসহ অনেকেই বিট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করেই পাকা ঘর নির্মানের কাজ করছেন। তবে বিট কর্মকর্তার তথ্যমতে দেখা গেছে মামলার প্রেক্ষিতে অবৈধ দখলকারীর হোতাদের কাউকেই আটক করা হয়নি। সাতখামাইর বিট কর্মকর্তা ছিদ্দিক মিয়া জানান, বিশাল এ বন এলাকা দেখা শোনা ও পর্যবেক্ষণ করার জন্য পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় দায়িত্ব পালন করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এ বিষয়ে শ্রীপুর ফরেস্ট রেঞ্চ কর্মকর্তা আনিছুল হক জানান,যারা সরকারি জমিতে ঘর নির্মাণ করেছে তাদেরকে মামলা দিয়ে দিয়েছি। অচিরেই অবৈধ দখলদারিদের উচ্ছেদ করে বনের জমি উদ্ধারের জন্য আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: