আজ: ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি, রাত ৩:৪৭
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ বগুড়ায় ভেজাল বোরো ধানবীজ কিনে প্রতারিত কৃষক

বগুড়ায় ভেজাল বোরো ধানবীজ কিনে প্রতারিত কৃষক


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৮/০৩/২০১৯ , ৪:০৬ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


দীপক কুমার সরকার, বগুড়া : ইরি-বোরো মৌসুমে সুলললতা জাতের উচ্চ ফলনশীল ভেজাল বোরো ধান বীজ চাষ করে প্রতারণার শিকার হয়েছে বগুড়ার ধুনট উপজেলার শতাধিক কৃষক। এ ঘটনায় সরুগ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক খৈয়ব আলী মন্ডল বাদি হয়ে গত বুধবার বিকালে ধুনট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।জানা যায়, উপজেলার কান্তনগর বাজারের ভাই-বোন ট্রেডার্সের মালিক গোলাম রব্বানী নামে এক ব্যবসায়ী সুবললতা জাতের উচ্চ ফলনশীল ভেজাল বোরো ধানের বীজ বাজারজাত করে। প্রতি বিঘায় ২৫-২৮ মণ ধান উৎপাদনের প্রলোভন দেখিয়ে কৃষকদের কাছে এই ধানের বীজ বিক্রি করা হলেও একমুঠো ধানও ঘরে উঠার আশা নেই। জমিতে চারা রোপনের পর ক্ষেতেই ধান গাছ নষ্ট হয়েছে ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এ উপজেলার হাট-বাজার নিম্নমানের ভেজাল ধানের বীজে সয়লাব হয়ে গেছে। সঠিক মনিটরিংয়ের অভাবে নিম্ন মানের ভেজাল ধানের বীজ বিক্রেতারা দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে। তারা অধিক লাভের জন্য নিজেরাই বাজার থেকে ধান কিনে চকচকে প্যাকেট তৈরি করে উন্নত জাত হিসেবে প্রচার করে অধিক মূল্যে বিক্রি করছে। এসব নিম্নমানের ভেজাল বীজ কিনে কৃষকরা প্রতারিত হচ্ছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলার সরুগ্রামের কৃষক খৈয়ব আলী জানান, সার, তেল ও কৃষি উপকরণের দাম বেড়ে যাওয়ায় বোরো চাষ করে উৎপাদন খরচই ওঠে না। তাই এবার ব্যবসায়ী গোলাম রব্বানীর কাছ থেকে বীজ কিনে বীজতলা তৈরি করি। এ বীজের চারা দিয়ে ৫ বিঘা জমি রোপন করি। পরে ওই জমিতে সার, কীটনাশক দিতে গিয়ে দেখি ধান গাছের কোন গোছা গজায়নি। এছাড়া ধান গাছ মারাও যাচ্ছে। একই গ্রামের কৃষক জাহিদুল ইসলাম ও আব্দুল হাকিমসহ শতাধিক কৃষক জমিতে এই ধানের চাষ করে প্রতারিত হয়েছেন।

বীজ বিক্রেতা গোলাম রব্বানী বলেন, বীজে ভেজাল ছিল কিনা, জানি না। মহাজনের কাছ থেকে বীজের প্যাকেট কিনে কৃষকদের কাছে বিক্রি করেছি। এই ধানের বীজ আগেও বিক্রি করেছি। কিন্তু কোন অভিযোগ আসেনি। তবে এবার যাদের কাছে এই বীজ বিক্রি করেছি সব কৃষকই এ ধরণের অভিযোগ দিয়েছে।
এ প্রসঙ্গে ধুনট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সরেজমিন তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। ফলে বীজ বিক্রেতা গোলাম রব্বানীর বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: