আজ: ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৮:৫২
সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে বোলিং মুস্তাফিজের

ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে বোলিং মুস্তাফিজের


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২০/০২/২০১৯ , ১:১৩ অপরাহ্ণ | বিভাগ: খেলাধূলা


আগের দুই ওয়ানডে মিলিয়ে ১৭ ওভার বোলিং করে দিয়েছিলেন ৭৮ রান। দ্বিতীয় ম্যাচে নিয়েছিলেন ২ উইকেট। কিন্তু তৃতীয় ওয়ানডেতে সেই চেনা রূপ দেখা যায়নি মুস্তাফিজুর রহমানকে। এলোমেলো লাইন-লেংথে রান দিলেন দেদার। বাঁহাতি পেসার নিলেন নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে বোলিংয়ের তেতো স্বাদ।

বুধবার ডানেডিনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে খরুচে বোলিংয়ে ১০ ওভারে ৯৩ রান দেন মুস্তাফিজ। ইকোনমি ৯.৩০! তবে এই ম্যাচে টাইগার পক্ষে সর্বাধিক ২ উইকেটও তিনিই শিকার করেন। কাটার মাস্টার ২৩টি ডট দিলেও হজম করেন ১০ চার ও ২ ছয়। অর্থাৎ তার বাকি ৩৭ বল থেকেই ৯৩ রান নেন কিউই ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ৬ ওভারে ৪৬ রান দেওয়ার পর তার শেষ স্পেলের ৪ ওভার থেকে আসে আরও ৪৭ রান!

মুস্তাফিজের এমন পারফরম্যান্স অবাক করারই মতো! এই ম্যাচের আগে ৪১ ইনিংসে বোলিং করলেও সবসময়ই তার ইকোনমি রেট ছিল আটের নিচে। আর সর্বোচ্চ ৬৩ রান দিয়েছিলেন দুবার। দুটিই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গেল বছরে। একবার ক্যারিয়াবিয়ানদের মাটিতে, আরেকবার ঘরের মাঠে।

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে দিনে মুস্তাফিজ এই ভেবে সান্ত্বনা নিতে পারেন যে, তার চেয়েও খরুচে বোলিংয়ের নজির বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে আছে আরও দুটি। দুটিরই মালিক শফিউল ইসলাম। ২০১০ সালের জুলাইতে বার্মিংহামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র তিন রানের জন্য সেঞ্চুরি (!) বঞ্চিত হয়েছিলেন এই পেসার। ৯ ওভারে দিয়েছিলেন ৯৭ রান। তার আগের মাসেই ডাম্বুলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি ৯৫ রান বিলিয়েছিলেন ১০ ওভারে।

এই তালিকায় মুস্তাফিজের পরেই আছেন বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। ২০০৮ সালে বেনোনিতে দক্ষিণ আফ্রিকা তার ৯ ওভার থেকে নিয়েছিল ৮৮ রান। আর ২০০৫ সালে সাবেক পেসার তাপস বৈশ্য নটিংহ্যামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র ৭ ওভারেই দিয়েছিলেন ৮৭ রান।

ওয়ানডে ইনিংসে কোনো বোলারের একশ বা তার বেশি রান দেওয়ার নজির আছে ১২টি। এই তালিকায় সবার উপরে অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিক লুইস। খরুচে বোলিংয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ে ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০ ওভারে ১১৩ রান দিয়েছিলেন তিনি।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: