আজ: ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি, সন্ধ্যা ৭:৩৭
সর্বশেষ সংবাদ
ফেসবুক থেকে, সম্পাদকীয় ৩৩টি ভ্রূণকে শিশুর লাশ বলে প্রচার সংবাদকর্মীদের অযোগ্যতার পরিচায়ক

৩৩টি ভ্রূণকে শিশুর লাশ বলে প্রচার সংবাদকর্মীদের অযোগ্যতার পরিচায়ক


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২০/০২/২০১৯ , ৭:০০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: ফেসবুক থেকে,সম্পাদকীয়


গতকাল থেকে বিভিন্ন চ্যানেল , অনলাইন পত্রিকা ও প্রিন্ট মিডিয়ার অনলাইন ও প্রিন্ট ভার্শনে বরিশাল মেডিকেলে ৩৩ নবজাতকের লাশ উদ্ধার শিরোনামে সংবাদ দেখে ভাবলাম লাশের ছবি দেখি । এরপর সত্যি অবাক হয়েছি । অজ্ঞ আর অযোগ্যদের দিয়ে সাংবাদিকতা হচ্ছে এদেশে । একজন গণমাধ্যম মালিক হিসেবে আমার কাছে অনেক বেশি লজ্জার ব্যাপার এটা । ৩৩টি ভ্রূণকে শিশুর লাশ বলে মিডিয়ায় প্রচার হল অথচ কেউ সঠিকটা জানানোর প্রয়োজন বোধ করলো না …।
সত্যটা হল ২৫ বছর পুরানা স্পেসিমেন ভ্রূণ মেডিকেল শিক্ষার্থীদের শিক্ষার উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। কিন্তু এখন আর ব্যবহার উপযোগী নয় বলে সেগুলো পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।
এসব স্পেসিমেন দিয়ে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজের হাজার হাজার শিক্ষার্থী গত ২৫ বছর ধরে গাইনীকলজি শিক্ষা পেয়েছেন এবং ডাক্তাররা তাদের বাস্তব জীবনে কাজে লাগিয়েছেন।

এই ভ্রূণগুলো সংগ্রহ করা হয়েছে ২৫ বছর ধরে এগুলো ইনফেন্ট মর্টালিটির ভ্রূণ। অর্থাৎ ‍শিশু জন্মের আগেই মায়ের গর্ভে মারা যায় এই সমস্ত ভ্রূণ। ডাক্তারদের অবহেলার জন্য নয়, মারা যায় প্রসূতি পরিবারের মূর্খতায়, অবহেলায়। এইসব ভ্রূণগুলোকে রেখে দেয়া হয় মেডিকেল কলেজের ছাত্র ছাত্রীদের শিক্ষার জন্য । অথচ সেসব স্পেসিমেনই হল চরম মিথ্যাচারের হাতিয়ার। বিভিন্ন মিডিয়ায় এমনভাবে প্রচার করা হলো এগুলো ডাক্তারদের অবহেলার কারণে মারা গেছে। ডাক্তারদের সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে একটি নেতিবাচক ধারণা দেবার জন্য অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছু নয়।
হ্যা কিছু ভুল রয়েছে মেডিকেল কর্তৃপক্ষের , প্রপার ডিস্পজাল করা হয়নি এসব ভ্রূণ । এই সমস্ত ব্যবহার অনুপযোগী স্পেসিমেন ডাষ্টবিনে না ফেলে মাটিতে পুতে ফেলা উচিত ছিল। মেডিকেল কলেজের কর্মচারীদের দায়িত্বহীনতায় এটি হয়েছে । এতোটুকু ভুল নিয়ে সংবাদ করা যেত । কিন্তু সংবাদটা পুরোটাই গেছে ডাক্তারদের বিরুদ্ধে …

লিখেছেনঃ রাকিবুল বাসার রাকিব , সম্পাদক ও প্রকাশক , দৈনিক মতপ্রকাশ । 

Comments

comments

Close