আজ: ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৮:৩১
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ, বিভাগীয় সংবাদ, রংপুর বিভাগ রাজারহাটে প্রার্থী বাছাই নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের সভা পণ্ড, মঞ্চ ভাঙচুর

রাজারহাটে প্রার্থী বাছাই নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের সভা পণ্ড, মঞ্চ ভাঙচুর


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৭/০১/২০১৯ , ৭:১২ অপরাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ,বিভাগীয় সংবাদ,রংপুর বিভাগ


  রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:  কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থী বাছাই নিয়ে দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত তুমুল হট্টগোল, মঞ্চের চেয়ার ভাঙচুর ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় জেলা নেতারা তাৎক্ষণিক সভা স্থগিত করে দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার বিকাল ৪টায় আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য রাজারহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

রাজারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চাষী আব্দুস ছালাম মাস্টারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবুনুর মো. আক্তারুজ্জামানের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মণ্ডল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন।

অতিথিদের বক্তব্য শেষে প্রথমে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীর নাম প্রস্তাবনা শেষে দ্বিতীয় পর্বে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীদের নাম প্রস্তাব করা হয়।

এক পর্যায়ে উমরমজিদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে নিজেকে দাবি করে মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু নামে এক প্রার্থী মঞ্চে উঠে নিজের নাম মাইকে প্রস্তাব করলে ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম ময়নাল তালুকদার বিরোধিতা করেন।

তিনি মঞ্জুকে জামায়াত-শিবির আখ্যায়িত করে মাইকে ঘোষণা দিলে সভাস্থলে হট্টগোল বেধে যায়। এ সময় চেয়ার ও প্যান্ডেল ভাঙচুর শুরু হয়। খবর পেয়ে রাজারহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আওয়ামী লীগ নেতারা সভা স্থগিত করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চাষী আব্দুস ছালাম মাস্টারের সঙ্গে তার মোবাইলে কল করলে পরে কথা হবে বলে ফোন কেটে দেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুনুর মো. আক্তারুজ্জামান অভিযোগ করে বলেন, সাবেক রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বর্তমান চাকিরপশার ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ সোহরাওয়ার্দী বাপ্পীর কর্মী-সমর্থকরা পরিকল্পিতভাবে সভার রেজুলেশন খাতা ছিঁড়ে ফেলে এবং মঞ্চের চেয়ার ভাঙচুর করে সভা পণ্ড করে দেয়।

সাবেক রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ সোহরাওয়ার্দী বাপ্পী বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের ছত্রছায়ায় উমরমজিদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মঞ্জু নামে এক কর্মী নিজে ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা ঘোষণা দিলে হট্টগোল শুরু হয়।

রাজারহাট থানা ওসি কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: