আজ: ৮ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রজব, ১৪৪২ হিজরি, রাত ৩:৪৪
সর্বশেষ সংবাদ
প্রধান সংবাদ, রাজধানী জুড়ে, রাজনীতি নির্বাচনে বিএনপির হয়ে হায়ারে খেলতে গিয়েছিলেন ড. কামাল: তথ্যমন্ত্রী

নির্বাচনে বিএনপির হয়ে হায়ারে খেলতে গিয়েছিলেন ড. কামাল: তথ্যমন্ত্রী


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১২/০১/২০১৯ , ১:৪৪ অপরাহ্ণ | বিভাগ: প্রধান সংবাদ,রাজধানী জুড়ে,রাজনীতি


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ড. কামাল হোসেন বিএনপির হয়ে হায়ারে খেলতে গিয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। শনিবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট সভাটির আয়োজন করে।হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচনের ব্যর্থতা ঢাকার জন্য হায়ারে খেলতে যাওয়া ড. কামাল হোসেন সংলাপের কথা বলেছেন। নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে সংলাপের কথা বলে। যারা অকশনে নমিনেশন বিক্রি করে তারা কীভাবে নির্বাচনে জয়লাভ করবে? নির্বাচনের ১০ দিন আগে হাত গুটিয়ে ঘরে বসে থেকে জয়লাভ করা যায়?তথ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে হেরে বিএনপির কয়েকজন নেতা পাগল হয়ে গেছেন, তাদের চিকিৎসার প্রয়োজন। তারা বহুল প্রশংসিত নির্বাচনে হেরে সংলাপের কথা বলছেন। নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে এ ধরনের কথা বলছেন তারা।তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আপনারা নির্বাচন বাণিজ্য করবেন, ৩০০ আসনে ৮০০ জনকে মনোনয়ন দেবেন। আবার জয়লাভের কথা বলবেন, জনগণ কি বোকা? তারা নমিনেশন বাণিজ্য যারা করেছেন তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপির উদ্দেশে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, আপনারা ২০১৪ সালে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছেন। স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের ওপর বোমা মেরেছেন। মনে রাখবেন বোমাবাজি করে ত্রাস করা যায়, ভোট পাওয়া যায় না। সবার আগে বিএনপির নেতৃত্ব প্রয়োজন, তবেই জনগণ আপনাদের গ্রহণ করতে পারে।মন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন হলেও স্বাধীনতা পূর্ণতা পায়নি, শূন্যতা অনুভব করেছিল দেশ। বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরলেই এর পূর্ণতা আসে। তিনি এ যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের হাল তুলে নিয়েছিলেন এবং কিছুদিনের মধ্যে এই দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৭ দশমিক ৪ শতাংশে নিয়ে গিয়েছিলেন যা আমরা গত ৪৭ বছর পর আবার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অর্জন করেছি।মন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের যে উন্নয়ন হচ্ছে তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ রোল মডেল হিসেবে নিয়েছে। আশা করি, বাংলাদেশের এই উন্নতির ধারা বজায় থাকবে।আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, প্রবীণ অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সারাহ বেগম কবরীসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: