আজ: ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৭:৪৯
সর্বশেষ সংবাদ
বিনোদন প্রধানমন্ত্রীর সান্নিধ্যে “জয় বাংলা, জিতবে আবার নৌকা” গানের কারিগররা

প্রধানমন্ত্রীর সান্নিধ্যে “জয় বাংলা, জিতবে আবার নৌকা” গানের কারিগররা


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৫/০১/২০১৯ , ১০:০২ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: বিনোদন


এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ‘জয় বাংলা জিতবে আবার নৌকা, শেখ হাসিনার সালাম নিন, নৌকা মার্কায় ভোট দিন’ এই গানের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সাফল্য তুলে ধরা হয়েছিল।

গত ৪ জানুয়ারি শুক্রবার গণভবনে পিঠা উৎসবে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করেন দেশের বহুল আলোচিত এই ‘জয়বাংলা’ গানের সদস্যরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে গণভবনে বসেছিল তারার মেলা। প্রধানমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে সকল সদস্যরা ছিল বেশ উচ্ছ্বসিত।

এবারের নির্বাচনের পূর্বে লোক মুখে মুখে ছিল ‘জয় বাংলা-জিতবে এবার নৌকা’ শীর্ষক গান, যে গানটির একই সাথে গীতিকার ও প্রযোজক প্রকৌশলী তৌহিদ হোসেন। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন যৌথভাবে সরোয়ার ও জিএম আশরাফ। আর সংগীত সম্পাদনা করেছেন ডিজে তনু ও এলএমজি বিটস। গ্রাফিক্স সম্পাদনা সমন্বয়ে ছিলেন মোহাম্মাদ হৃদয়।

গানটির গীতিকার ও প্রযোজকঃ প্রকৌশলী তৌহিদ হোসেন

প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পেয়ে গানটির গীতিকার প্রকৌশলী তৌহিদ হোসেন জানান, ‘একটি গান পুরো দেশের জনগণকে আনন্দিত করতে পারে। সত্যিই  প্রশংসনীয়।  এমনই মন্তব্য পেয়েছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে। আমরা সত্যিই আনন্দিত এবং গর্বিত। বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে আগামীতেও আমরা নতুন নতুন গান উপহার দিতে পারবো। আমাদের সকল সদস্য বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনের প্রতি বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞ।’

এদিকে দেশব্যাপী গানটি ব্যাপকভাবে ভাইরালও হয়েছে। অনেকে এটিকে রিংটোন হিসেবেও ব্যবহার করছেন। বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা গানটির সঙ্গে নেচে ফ্লাশমবও তৈরি করেছেন।

গানটি প্রসঙ্গে প্রকৌশলী তৌহিদ হোসেনে আরো বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে নিয়ে ব্যাতিক্রম কিছু একটা করার পরিকল্পনা ছিল। সেই পরিকল্পনার অংশছিল এই গানটি। কিন্তু গানটি যে এতটা অভাবনীয় সাড়া ফেলবে ভাবতেই পারিনি।

তরুণ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করতে গানটি ভালো ভুমিকা রাখছে বলে আমি বিশ্বাস করি।’ তৌহিদ হোসেনের মতে, এক গানে সরকারের সাফল্য তুলে ধরা সম্ভব নয়। তবুও তিনি চেষ্টা করেছেন এবং সে চেষ্টাকে দেশবাসী সাদরে গ্রহণও করেছে।

তিনি বলেন, ‘গানটি আমরা নিজেদের ভালো লাগার জায়গা থেকে তৈরি করে ইউটিউবে প্রকাশ করেছিলাম। বাকীটা ইতিহাস। দ্রুতই এটি ছড়িয়ে যায় সর্বত্র। আওয়ামীলীগের অনেক জনপ্রিয় নেতারাও এটিকে শেয়ার দিয়েছেন, ফোনের রিংটোন করে নিয়েছেন। অন্য দলের বন্ধুরাও গানটির প্রশংসা করছেন। এটা সত্যি আনন্দের।’

প্রথম গানটির সাড়া পাওয়ার পরই এর সিক্যুয়াল ‘জিতলো আবার নৌকা’ গানটি প্রকাশ করা হয়। এই গানটিও রীতিমত আলোড়ন তুলেছে।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: