আজ: ৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে রজব, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ৭:০১
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন ধারা জেনে নিন শীতে পা ফাটা থেকে বাঁচার উপায়

জেনে নিন শীতে পা ফাটা থেকে বাঁচার উপায়


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১৬/১২/২০১৮ , ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জীবন ধারা


শীত এলেই শ্রীহীন হতে শুরু করে আমাদের ত্বক। সারা শরীর তো খসখসে হয়ই, সেইসঙ্গে ঠোঁট, কনুই, পা ফেটে যায় অনেকেরই। ফাটা পা নিয়ে পড়তে হয় অস্বস্তিতে। বাজার চলতি নানারকম ক্রিম, লোশন মেখেও মেলে না মুক্তি।

শুধু ঠাণ্ডার সময়েই নয়, পা ফাটতে পারে বছরের যে কোনো সময়ে। পা ফাটার অনেক কারণ রয়েছে। সঠিক জুতা না পড়া, দিনের অনেকটা সময় দাঁড়িয়ে কাটানো, সঠিক খাবার না খাওয়া, ত্বকের যত্ন না নেয়া এগুলো হতে পারে প্রধান কারণ। এমন কি ডায়াবেটিস, সোরোসিস-এর মতো অসুখ থাকলেও পা ফাটে।

আমাদের পায়ের পাতার উপর সারা শরীরের ভর থাকে। পথে চলতে ধুলোর সবচেয়ে কাছাকাছি থাকে শরীরের এই অংশই। তাই পায়ের পাতার যত্নের প্রয়োজন হয় সবসময়ই। কিন্তু শরীরের নানা যত্ন নিলেও পায়ের দিকে অতোটা নজর থাকে না আমাদের। তাই শীত এলে সবার আগে সৌন্দর্য হারাতে শুরু করে আমাদের পা জোড়া।

শীতের পা জোড়া রাখতে দু-তিনটি উপাদানই যথেষ্ট। এই উপায়ে যত্ন নিলে পুরো শীতকাল পা তো ফাটবেই না, বরং রুক্ষ ও ফেটে যাওয়া ত্বকের অংশও মোলায়েম হয়ে উঠবে।

চলুন জেনে নেই কী সেই উপায়-

একটি পাত্রে নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল নিন। এতে মিশিয়ে নিন গরম গলানো মোম। এবার মোম জমে যাওয়ার আগেই ঈষদুষ্ণ এই মিশ্রণ লাগিয়ে রাখুন পায়ের তলায়। তবে এরপর খুব বেশি হাঁটাচলা করবেন না, তাই রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এই প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে পারলে ভালো হয়। সকালে উঠে পায়ে জমে যাওয়া মোম-তেলের মিশ্রণ ফেলে দিয়ে পা ধুয়ে নিন। এভাবে যত্ন নিলে পা ফাটা দূর হওয়ার সঙ্গে পায়ের তলা পরিষ্কার ও নরম থাকবে। আরও ভালো ফল পেতে সপ্তাহে দু’-তিন দিন এই মিশ্রণের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা মধুও মেশাতে পারেন।

পায়ের নিচে অনেক স্নায়ু থাকে। তাই এই উষ্ণ মিশ্রণ সেখানে মাখালে তার প্রভাবে শরীর গরম থাকে, ঘুমও ভালো হয়। এভাবেই সারাদিন পরিশ্রমের পর রাতে ঘুমানোর আগে মিনিট পাঁচেক সময় আর সামান্য খরচেই এবার শীতে আপনার পা জোড়া রাখুন কোমল ও সুন্দর।

জেনে নিন আরও কয়টি ঘরোয়া উপায়
চালের গুঁড়ো : এক মুঠো চালের গুঁড়োর সঙ্গে ২ চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। গরম পানিতে পা ধুয়ে এই পেস্টটি স্ক্রাব হিসাবে ব্যবহার করুন।

লেবু : গরম পানিতে ৪ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। ভাল করে স্ক্রাব করে পা ধুয়ে ফেলুন। পা মুছে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

গ্লিসারিন ও গোলাপজল : সমান পরিমাণ গ্লিসারিন ও গোলাপজল মিশিয়ে ভাল করে পায়ে মালিশ করুন, এটি প্রতিদিন করতে হবে।

তিলের তেল : প্রতিদিন এই তেল ভাল করে পায়ে মালিশ করুন। দেখবেন ভাল ফল পাবেন।

মধু : গরম পানিতে এক কাপ মধু মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট।

ভ্যাজলিন ও লেবুর রস : গরম পানিতে পা ভাল করে ধুয়ে নিন। ভ্যাজলিনের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে ভাল করে পায়ে মেখে নিন।

ইপসাম সল্ট : ইসসম লবণ হলো ম্যানেসিয়াম সালফেট। যা ওষুধের ফার্মেসীতে কিনতে পাবেন। গরম পানিতে আধ কাপ লবণ মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট । স্ক্রাব করে পা ধুয়ে ফেলুন।

অ্যালোভেরা জেল : গরম পানিতে ভাল করে পা ধুয়ে নিন। তার পরে ভাল করে এই জেল মালিশ করুন।

কলা : পাকা কলার সঙ্গে গ্লিসারিন মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। পায়ে মেখে রাখতে হবে ১ ঘণ্টা। তার পরে ধুয়ে ফেলুন।

বেকিং সোডা : গরম পানিতে ৩ চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন মিনিট ১৫। পা ধুয়ে, ভাল করে মুছে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: