আজ: ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সন্ধ্যা ৭:২৫
সর্বশেষ সংবাদ
শিক্ষাঙ্গন জাককানইবিতে সান্ধ্য আইনের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের ক্ষোভ : ‘দুঃখিত, এটা কিন্ডারগার্টেন নয় এটা বিশ্ববিদ্যালয়’

জাককানইবিতে সান্ধ্য আইনের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের ক্ষোভ : ‘দুঃখিত, এটা কিন্ডারগার্টেন নয় এটা বিশ্ববিদ্যালয়’


পোস্ট করেছেন: online desk2 | প্রকাশিত হয়েছে: ২৯/১১/২০১৮ , ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: শিক্ষাঙ্গন


জাককানইবি সংবাদদাতাঃ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাককানইবি) অধ্যয়নরত ছাত্রীদের উপর প্রশাসনের আরোপিত সান্ধ্য আইনের প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শতাধিক শিক্ষার্থী। রাত ৮টার মধ্যে ক্যাম্পাস ত্যাগ ও ৮ টা ৩০ মিনিটের মধ্যে ছাত্রী মেসে প্রবেশে প্রশাসনের গৃহীত সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘দুঃখিত, এটা কিন্ডারগার্টেন নয় এটা বিশ্ববিদ্যালয়’, ‘মেস মালিকের খোঁয়াড়ে নয়, মুক্ত আঙ্গিনায় থাকতে চাই’, ‘বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর, অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর’ সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

বুধবার (২৮ নভেম্বর) রাত ৮টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘চির উন্নত মম শির’ শহীদ মিনারে শতাধিক ছাত্রী প্রদীপ প্রজ্বলন করে বিভিন্ন ফেস্টুন হাতে এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়। যেখানে ছাত্ররাও সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিল। এ সময় তারা স্লোগান দেয় ‘স্যার রাত ৮টা বাজে!’। এছাড়া বিভিন্ন গানের মাধ্যমেও প্রতিবাদ জানায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করা শিক্ষার্থীরা। এ সময় ‘বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর, অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর’, ‘আমরা হাঁস-মুরগি না ৮টায় খোঁয়াড়ে ঢুকবো না’, ‘আমরা কারা? মেয়ে শিক্ষার্থী নাকি শিক্ষার্থী?’, ‘নারী তোমায় কবে মানুষ ভাবা হবে? নারী নয় পুরুষ নয় আত্মার মুক্তি চাই’, ‘মেস মালিকের খোঁয়াড়ে নয় মুক্ত আঙ্গিনায় থাকতে চাই’, ‘দুঃখিত, এটা কিন্ডারগার্টেন নয় এটা বিশ্ববিদ্যালয়’, ‘ছাত্র নয়, ছাত্রী নয় শিক্ষার্থী হতে চাই’ সহ বিভিন্ন উক্তি সম্বলিত বিভিন্ন ফেস্টুন হাতে শিক্ষার্থীরা এ প্রতিবাদ করতে দেখা যায়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে জানান, এটি বর্বর যুগের নিদর্শন ও কঠিনতম সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গি যা আমরা মানবো না, প্রশাসনের হটকারী সিদ্ধান্ত মানি না। এছাড়াও এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সারারাত অবস্থানের কথাও জানায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

অবস্থান কর্মসূচি শুরুর ঘন্টাখানেক পর প্রক্টর উজ্জ্বল কুমার প্রধানের নেতৃত্বে প্রক্টরিয়াল বডির সকল সদস্য উপস্থিত হয়ে সিদ্ধান্তের পক্ষে শিক্ষার্থীদের বুঝানোর চেষ্টা করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা, হল ও মেসে প্রবেশে সময় বৃদ্ধি সহ মোট ৯ (নয়) দফা দাবি উত্থাপন করে সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে অবস্থান নেয়া ছাত্রীরা। মেসসমূহে রাত ১০টা পর্যন্ত প্রবেশে প্রক্টরিয়াল বডির আশ্বাসে প্রায় ঘন্টা দেড়েক পর শিক্ষার্থীরা তাদের অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করে।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৭ নভেম্বর) বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বসবাসরত শিক্ষার্থীদের মেস মালিকদের সাথে কেন্দ্রীয় কনফারেন্স কক্ষে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ছাত্রীদের রাত ৮টার মধ্যে ক্যাম্পাস ত্যাগ ও ৮ টা ৩০মিনিটের মধ্যে ছাত্রী মেসে প্রবেশের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। রাতে সিদ্ধান্তটি প্রকাশিত হলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গ্রুপে প্রতিবাদে সমালোচনার ঝড় উঠে।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: