আজ: ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি, রাত ৮:৫৭
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ কোম্পানীগঞ্জে নিম্নমানের ইট দিয়ে রাস্তার কাজ করে সরকারি অর্থ হরিলুট

কোম্পানীগঞ্জে নিম্নমানের ইট দিয়ে রাস্তার কাজ করে সরকারি অর্থ হরিলুট


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১৮/০৫/২০১৮ , ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী. জনাব ওবায়দুল কাদেরের  নিজ উপজেলা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নিম্নমানের ইট দিয়ে রাস্তার কাজ করে সরকারি অর্থ হরিলুট করছেন ‘ভাগিনা’ পরিচয়দানকারী জনৈক ইস্কান্দার মির্জা শামীম।

অভিযোগ উঠেছে, আ’লীগের কেন্দ্রীয় উপ- কমিটির সাবেক নেতা ইস্কান্দার মির্জা শামীমের মালিকানাধীন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ‘শামীম এন্টার প্রাইজ’ উপজেলার চরহাজারী ইউনিয়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক নির্মাণে এ অনিয়ম করছেন। এমনকি, প্রকৌশলীরা নিম্নমানের ইট ব্যবহার করতে বারণ করলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তা মানছে না।

অভিযোগ জানা গেছে, উপজেলার চরহাজারী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের আব্বাসের টেক থেকে পাঁচ বাড়ির দক্ষিণ পাশ পর্যন্ত জেএনপি-২ প্রজেক্ট এর প্রায় ১২’শ মিটার পাকা রাস্তা নির্মাণে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এ অনিয়মের আশ্রয় নিয়েছে।নিয়ম না মেনে ইটের খোয়া ও ডাস্ট দিয়ে রাস্তার কাজ করছে ঠিকাদার।

এদিকে নিম্নমানের এ কাজে কেউ প্রতিবাদ করলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন হামলা ও মামলার হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয়রা জানান, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী ইব্রাহীম খলিলের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নিম্নমানের কাজ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, এটা রাস্তার কাজ নয়। লুটপাটের একটা ফাঁদ তৈরী করে সরকারি টাকা ভাগভাটোয়ারা করে নেয়া হচ্ছে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১২শ মিটার পাকা রাস্তা নির্মাণের জন্য প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৭২ লক্ষ টাকা।

এ বিষয়ে ঠিকাদার ইস্কান্দার মির্জা শামীম সাংবাদিকদের জানান, নিম্নমানের কাজ হচ্ছে বলে তিনি জানেন না। তবে অন্য ঠিকাদার তার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্সে এই রাস্তার কাজ করছে বলে তিনি জানান।

এলাকাবাসী ঠিকাদার ইস্কান্দার মির্জা শামীমের বক্তব্য নাকচ করে দিয়ে বলেন, শামীম হরিলুটকারী, তিনি সব জানেন। টিপু নামে তার এক লোক দিয়ে কৌশলে নিম্নমানের কাজ করিয়ে সরকারি অর্থ হরিলুট করছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী ইব্রাহীম খলিল জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে সহকারী প্রকৌশলীকে উক্ত কাজ পরিদর্শনে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে, নোয়াখালী জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুস সাত্তারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।

Comments

comments

Close