আজ: ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি, দুপুর ২:৩২
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, জেলা সংবাদ কোটালীপাড়ায় নারী ধর্ষণ, গর্ভপাতে ব্যর্থ হয়ে মারপিট

কোটালীপাড়ায় নারী ধর্ষণ, গর্ভপাতে ব্যর্থ হয়ে মারপিট


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ২৫/০৪/২০১৮ , ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,জেলা সংবাদ


গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় স্বামী পরিত্যক্ত মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারীকে যৌন নির্যাতন করে গর্ভবতী করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গর্ভপাত ঘটাতে রাজি না হওয়ায় ধর্ষণকারীরা তাকে মারপিট করে মারাত্মক আহত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় পুলিশ আজ বুধবার সকালে নজরুল ইসলাম ওরফে বাবুল (৪৬) নামের অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার বাবুল কোটালীপাড়া উপজেলার কাচারিভিটা গ্রামের আব্দুল জব্বার শেখের ছেলে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলার কোটালীপাড়া উপজেলার নয়াকান্দি গ্রামে এই মারপিটের ঘটনা ঘটে। প্রথমে ওই নারীকে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে সন্ধ্যায় গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত নারীর বোন ও মামলার বাদী মুক্তি বেগম বলেন, ‘মানসিক সমস্যার কারণে প্রায় ৮-১০ বছর আগে আমার বোনকে তার স্বামী ছেড়ে দেন। এরপর থেকে সে আমাদের (বাবার) বাড়িতে বসবাস করছে। ২০১৭ সালের ২ অক্টোবর এলাকার ৪-৫ জন যুবক আমার বোনকে ধর্ষণ করে। এতে সে গর্ভবতী হয়। পরে চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি আমার বোনকে জোরপূর্বক গর্ভপাত ঘটানোর চেষ্টা করে তারা।’

মুক্তি বেগম আরো বলেন, ‘এ ঘটনায় কোনো উপায়ান্তর না দেখে আমি গত ২৭ ফেব্রুয়ারি কোটালীপাড়া উপজেলার কাচারিভিটা গ্রামের আব্দুল জব্বার শেখের ছেলে নজরুল ইসলাম শেখ ওরফে বাবুল (৪৬), মুনসুর শেখের ছেলে কবির শেখ (৩৮), আফছের হাওলাদারের ছেলে নরুল ইসলাম হাওলাদার (৩৮), মনিন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে চীকমনি বিশ্বাস (৫৫) ও একই উপজেলার নয়াকান্দি গ্রামের মনিন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে অনিল বিশ্বাসকে (৩৫) আসামি করে গোপালগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা করি। মামলার পর থেকেই আসামিরা আমাদের জীবননাশসহ বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সাত মাসের গর্ভবতী আমার বোনকে আসামিরা মারধর করে মারাত্মক আহত করে। আহত অবস্থায় আমরা তাকে প্রথমে কোটালীপাড়া হাসপাতাল ও পরে গোপালগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. নাজমুল হক বলেন, ‘গর্ভবতী নারীকে আমরা হাসপাতালে ভর্তি করেছি। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে।’

কোটালীপাড়া থানার ওসি মো. কামরুল ফারুক জানিয়েছেন, ‘ধর্ষণের বিষয়টি আমাদের জানানো হয়নি। তারা আদালতে মামলা করেছে। তবে নারীকে মারপিট করে আহত করার বিষয়টি আমাদের জানালে আমরা মামলার প্রধান আসামি নজরুল ইসলাম শেখকে গ্রেপ্তার করেছি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। অন্য আসামিদেরকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার সাইদুর রহমান খান বলেন, ‘আমরা বিষয়টি আমলে নিয়ে ইতিমধ্যে কার্যক্রম শুরু করেছি। একজন আসামিকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। বিষয়টির তদন্ত চলছে। ঘটনার সত্যতা অনুযায়ী উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ – কালের কণ্ঠ অনলাইন 

Comments

comments

Close