আজ: ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি, সকাল ৭:৫৭
সর্বশেষ সংবাদ
প্রধান সংবাদ, রাজনীতি খালেদা জিয়া অসুস্থ, দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে হবে : ফখরুল

খালেদা জিয়া অসুস্থ, দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে হবে : ফখরুল


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৬/০৪/২০১৮ , ৬:২৯ অপরাহ্ণ | বিভাগ: প্রধান সংবাদ,রাজনীতি


বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে সত্যিকার অর্থেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
তিনি বলেন, তিনি সত্যিই অসুস্থ। এ জন্য তাকে যেসব চিকিৎসা দেয়া দরকার, দ্রুত তার ব্যবস্থা নিতে হবে। সরকারি চিকিৎসকরা তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছেন। আমরা চাই-ব্যক্তিগত চিকিৎসকরাও যেন তাকে চিকিৎসা দিতে পারেন, সরকার সে ব্যবস্থা করবে।
তিনি অভিযোগ করেন, কারাগারে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পাচ্ছেন না খালেদা জিয়া। তবে তিনি এও জানান, অসুস্থ হলেও বেগম জিয়ার মনোবল অটুট আছে। এমনকি আমাদের চেয়েও তিনি মানসিকভাবে শক্ত আছেন।
শুক্রবার বিকেলে নাজিম উদ্দিন রোডের পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে কারা ফটকের সামনে সাংবাদিকদের মির্জা ফখরুল এ সব কথা জানান।
মির্জা ফখরুল বলেন, উনার (খালেদা জিয়া) অসুস্থতার খবর পাওয়ার পর থেকেই আমরা খুব উদ্বিগ্ন ছিলাম। তার স্নায়ুসংক্রান্ত সমস্যা বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ওনার হাঁটতেও খুব কষ্ট হয়। অত্যন্ত দুঃখজনক যে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদেরকে তার সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হচ্ছে না। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না পাওয়ার কারণ হচ্ছে তিনি দীর্ঘদিন ব্যক্তিগত চিকিৎসকের অধীনে ছিলেন। অবিলম্বে আমরা তার চিকিৎসকদের সঙ্গে দেখা করতে দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। এটা অত্যন্ত জরুরি। কারণ তার চিকিৎসকরা জানেন তার কি সমস্যা, কী চিকিৎসা দিতে হবে।
তিনি বলেন, এটা স্বাভাবিক, যে মানুষ বন্দি জীবনে অভ্যস্থ নন। তাকে বন্দি করে রাখা হলে তার ছাপ একটু পড়বেই। কিন্তু, উনার মনোবল অত্যন্ত শক্ত। তিনি আমাকে বলেছেন, ‘আমার জন্য ভাববেন না। আমি শক্ত আছি। এসব ছোটখাটো সমস্যা আমাকে সমস্যায় ফেলবে না।’
তিনি আরও বলেন, আমরা বরাবরই বলে আসছি- উনার অসুস্থতার বিষয়ে যেসব ব্যবস্থা নেয়া দরকার, তা নেয়া হচ্ছে না।
বিএনপির চলমান আন্দোলন নিয়ে চেয়ারপারসনের সঙ্গে কোনো কথা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়া মনে করেন বর্তমানে দেশের সবচেয়ে বড় সংকট গণতন্ত্র। সরকার যদি গণতন্ত্র উত্তরণে কোনো পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে চলমান আন্দোলনই গণতন্ত্র উত্তরণের একমাত্র পথ।
এর আগে বিকেল পৌনে ৫টার দিকে মির্জা ফখরুল একাই নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রবেশ করেন। প্রায় এক ঘণ্টা পর সেখান থেকে বের হন। বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা, স্বাস্থ্য, মেডিক্যাল বোর্ড নিয়ে আলোচনা করেছেন। পাশাপাশি গাজীপুর, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়েও খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলের মহাসচিবের আলোচনা হয়েছে।
এর আগে গত ৭ মার্চ মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সাত নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে দেখা করার সুযোগ পেয়েছিলেন।ওইদিন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, আবদুলমঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এবং খালেদা জিয়ার একান্ত সচিব এম বি এম আবদুস সাত্তারও ছিলেন ফখরুলের সঙ্গে।
গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরে সাজার রায়ের পর থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ওই কারাগারে রাখা হয়েছে। সেখানে তিনিই এখন একমাত্র বন্দি।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: