আজ: ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি, রাত ৩:১৮
সর্বশেষ সংবাদ
জেলা সংবাদ শ্রীমঙ্গলে সোনার বাংলা মার্কেটে আগুন,ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

শ্রীমঙ্গলে সোনার বাংলা মার্কেটে আগুন,ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ৩১/০৩/২০১৮ , ১:০৬ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জেলা সংবাদ


 কে.এস.এম. আরিফুল ইসলাম , শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সোনার বাংলা মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মার্কেটটি স্টেশন রোডে। আগুনে ৫টি দোকান পুড়ে গেছে। ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট এলাকার লোকজনের সহায়তায় এক ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

 

শ্রীমঙ্গলে সোনার বাংলা মার্কেটে আগুন, একঘন্টা পর নিয়ন্ত্রণে

স্থানীয় লোকজন জানান, ৩০ মার্চ শুক্রবার রাত ১১টায় তুলার গুদামের থেকে আগুনের সূত্রপাত। পরবর্তীতে অন্যান্য দোকানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। ১০ থেকে ১৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আগুন লাগার ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড.মো: আব্দুস শহীদ এমপি, শ্রীমঙ্গল সার্কেল অফিসার আশরাফুজ্জামান, অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুল, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মনসুরুল হক, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম ইদ্রিস আলী, সহ-সভাপতি আহমেদ ফারুক মিল্লাদ, শ্রীমঙ্গলব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক হাজী কামাল হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দরা উপস্থিত হন।

মার্কেটের সভাপতি বদরুল মিয়া বলেন, কিসের থেকে আগুন লাগতে পারে সেটি আমরা জানতে পারি নাই। আজকে শুক্রবার দিন মার্কেটের সব বন্ধ ছিলো। তবে আমরা অনুমান করছি একটি তুলার গুদাম থেকে আগুনটি লেগেছে। মার্কেটে তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয় নাই। আগুনে মার্কেটের ৮ থেকে ১০টি দোকান ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

মৌলভীবাজারের ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক শফিকুল ইসলাম ভূইয়া বলেন, তুলা দোকানে আগুন লাগার সংবাদ পেয়ে শ্রীমঙ্গল থেকে দুটো ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভানো শুরু করে। এরই মধ্যে মৌলভীবাজার থেকে দুটো এবং কমলগঞ্জ থেকে একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভানোর কাজে যোগ দেয়। এর মধ্যে চারটি দোকান সম্পুর্ণ, আংশিক ৩টি এবং ১টি পানের আড়ৎ পুড়ে গেছে। এর মধ্যে ১০/১০, ৪০/১৫ সাইজের ৪টি দোকান পুড়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ধারনা করছি তুলার গোডাউন থেকে হয়েছে। এটা বিদ্যুতের থেকেও হইতেও পারে। তবে আগুন কি থেকে লেগেছে সেটা তদন্ত সাপেক্ষে এটা বলা যাবে। এখানের দোকানগুলোতে আগুন নেভানোর কোন যন্ত্র ছিলো না।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: