আজ: ১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি, রাত ১১:৪৭
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন ধারা বিয়ের পর শারীরিক সম্পর্ক কী বাধ্যতামূলক ?

বিয়ের পর শারীরিক সম্পর্ক কী বাধ্যতামূলক ?


পোস্ট করেছেন: মতপ্রকাশ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০১/০২/২০১৮ , ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জীবন ধারা


বিয়ে ভীতি কমবেশি নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। প্রধান যে দুটো কারণে বিয়ে ভীতি থাকে সেটা হচ্ছে, নতুন জীবনে প্রবেশ ও শারীরিক সম্পর্ক।

নতুন জীবনে প্রবেশ তো অনেকটাই ইচ্ছা-অনিচ্ছার ওপর নির্ভর করে। তাই ইদানিং অনেকেই সিঙ্গেল লাইফ লিড করেন। কিন্তু বিয়ের পরে স্বামী-স্ত্রী একসঙ্গে একই ছাদের নিচে বসবাস করছেন, তাহলে তাদের মধ্যে কি শারীরিক সম্পর্ক থাকতেই হবে?
মানবিক বিষয়টিকে প্রাধান্য দিলে তা হয়তো একেবারেই নয়, কিন্তু বিয়ে সঙ্গে সঙ্গে সমাজ ও রাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী স্বামী স্ত্রী শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলার ক্ষেত্রে বৈধতা পায়। তাই আইন অনুযায়ী বিয়ের সঙ্গে একটি বিষয় এমনিতেই চলে আসে, সেটা হচ্ছে, ‘কনজিউমেশন অফ ম্যারেজ’।

শারীরিক সম্পর্ক বিবাহিত জীবনে ভিন্ন মা্ত্রা আনে। ছবি: পিক্সাবে

ভারতীয় আইনে বিয়ের পর স্বামী স্ত্রীর মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক (সঙ্গম) অর্থাৎ স্ত্রীঅঙ্গে পুরুষাঙ্গের পূর্ণ প্রবেশকে ‘কনজিউমেশন অফ ম্যারেজ’ বলে বর্ণনা করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে যদি শারীরিক সম্পর্ক না হয় তবে, বিয়েটি আইনসিদ্ধ হলেও তা পরিপূর্ণ হয়।

সম্প্রতি এই বিতর্কটি নতুন করে উস্কে দিয়েছে বোম্বে হাইকোর্টের একটি রায়।

ঘটনার শুরু মহারাষ্ট্রের কোলাপুরের এক দম্পতির। দীর্ঘ পর ৯ বছর পেরিয়ে গেলেও তাদের মধ্যে কোনো শারীরিক সম্পর্ক হয়নি। ঘটনায় স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ করেন স্ত্রী।

পরে দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত বিবাহ বিচ্ছেদের রায় দেয়। কিন্তু ওই নারীর স্বামী আদালতের এ রায় মেনে নিতে নারাজ ছিলেন।

আদালতের রায় অনুযায়ী, কনজিউমেশন না হলে স্বামী বা স্ত্রী বিবাহ বিচ্ছেদ চাইতে পারেন। তবে পরবর্তী পরিস্থিতি আদালতের বিবেচনার বিষয়।

বিয়ের মাধ্যমে শারীরিক সম্পর্ককে বৈধতা দেয় সমাজ, আইন ও ধর্ম। ছবি: পিক্সাবে

স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের মতে, নন কনজিউমেশন দুটি কারণে হতে পারে, ১. প্রাকৃতিক কারণ অর্থাৎ বন্ধ্যাত্ব, ২. শারীরিক সম্পর্কে অনিচ্ছা।

তবে বিয়ের পর শারীরিক সম্পর্ক হওয়া বাধ্যতামূলক কি না, এ বিষয়ে বাংলাদেশি আইনে স্পষ্ট কিছু বলা নেই। তবে এ কথা ঠিক, বিয়ের পর শারীরিক সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ হলেও স্বামী বা স্ত্রীর পক্ষ জোরপূর্বক তা করাটা অন্যায়।

তাই বিয়ের পর শারীরিক সম্পর্ককে ‘বাধ্যতামূলক’ বলা যায় না। বরং উভিয়ে চাইলে কোনো রকম শারীরিক সম্পর্ক ছাড়াই সারা জীবনও কাটাতে পারেন। কিন্তু একপক্ষ না চাইলে সেটি যদি আদালত পর্যন্ত গড়ায় তবে বোম্বে হাইকোর্টের মতো রায় হওয়ার সম্ভাবনাটাই বেশি।

Comments

comments

Close
%d bloggers like this: